শনিবার | ৮ই আগস্ট, ২০২০ ইং |

অমর ডি কস্তা, বর্তমানকন্ঠ ডটকম : করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকলকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বাজারের সকল দোকান-পাটও বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় ফেসবুকে দেখা যাচ্ছে চুল, দাড়ি, গোঁফ বড় হয়েছে এমন ছবি পোস্ট করছে ছেলে বা পুরুষেরা। কাটানোর মতো কোন সেলুন খোলা না থাকায় হতাশ এক পুরুষকে মানসিক স্বস্তি দিতে নিজেই কেচি তুলে নিয়েছে এক গৃহবধূ। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করার পর ইতোমধ্যে তা ভাইরালও হয়ে গেছে।

নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়া পৌরশহরের কালিকাপুর মহল্লার তরুণ ব্যবসায়ী সমীর পালমার চুল কাটছে তার স্ত্রী এমন ছবি ব্যক্তিগত ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেছেন ‘বাড়িতে থাকি তাই বলে কি চুল কাটবো না….তাই বৌ এর হাতে কেচি তুলে দিলাম।’ স্ত্রী লাকি কস্তাও এটাকে বিপদকালীন সময়ে স্বামীর প্রতি ভালোবাসা ও দায়িত্ববোধ হিসেবে মনে করে ফেসবুকে বিভিন্ন মানুষের পজিটিভ বা নেগেটিভ সব মন্তব্যকে সাদরে গ্রহন করছেন।

তবে ফেসবুক কমেন্টস-এ বেশীরভাগ মানুষই এ ঘটনাকে সম্মান দেখিয়ে সুনাম করে মন্তব্য লিখেছে। ডানিয়েল চৌধুরী তার মন্তব্যে লিখেছেন, ‘এটা চীরস্থায়ী ভালোবাসার একটি প্রদর্শনী’, হুমায়ুন কবীর লিখেছেন, ‘এমন লক্ষী বৌ সকলের ঘরে থাকা দরকার’, সাগর ডি কস্তা লিখেছেন, ‘এমন গুনবতী লাইফ পার্টনার কয়জনের ভাগ্যে জোটে, এমন ভালোবাসা ছুঁয়ে থাক দুজনের’, সুফলা রোজারিও লিখেছেন, নারী-সব পারি, এটাই তার বাস্তব প্রমাণ’ ইত্যাদি।

এ বিষয়ে সমীর পালমা বলেন, প্রয়োজনে আমিও স্ত্রী’র ভ্রু প্লাগ বা মাথার চুলের বিউটি হেয়ার কাটিং করে দিতে প্রস্তুত আছি। সমীরের স্ত্রী লাকী কস্তা বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঘরে থাকাটাই জরুরী। এ অবস্থায় স্বামীর চুল ছেটে দিয়ে স্বামীকে ঘরে থাকার অনুপ্রেরণা দেয়ার প্রয়োজন থেকে এ কাজটি করেছি।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *