শুক্রবার | ৩রা জুলাই, ২০২০ ইং |

কোভিড১৯ ভ্যাক্সিন – যুক্তরাজ্য থেকে নতুন টীকার খবর

ডাঃ ইসমত কবীর, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, যুক্তরাজ্য : লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের নতুন ভ্যাক্সিন এর প্রথম পর্বের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হলো গত ২৩শে জুন, ২০২০।

এটা একটা অগ্রসর প্রযুক্তির আরএনএ নির্ভর টীকা, এটার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মডারনার এমআরএনএ (mRNA) টীকার মিল রয়েছে।

এটার নাম এসএআরএনএ (saRNA or self amplifying RNA). এমআরএনএ(mRNA) সম্ভাব্য টীকাটির এক হাজার ভাগের একভাগ দিয়েই এর কার্যকর ডোজ তৈরী হবে বলে খরচের দিক থেকে এটা হবে অনেক সাশ্রয়ী।

পেশীতে ইঞ্জেকশন হিসেবে এ টীকা দেওয়ার পরই দেহের কোষ ব্যবহার করে এটা কোভিড১৯ এর গুরুত্বপূর্ণ অংশ ‘স্পাইক’ বা কাঁটার প্রোটিন তৈরী করবে যা এর বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতার জন্ম দেবে।

কৃত্রিমভাবে তৈরি এ টীকাটি ইতোমধ্যে প্রানীদেহে নিরাপদ প্রমাণিত হয়েছে, উপযুক্ত রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা তৈরিতে সমর্থ হয়েছে।

৩৯ বছরের স্বেচ্ছাসেবী ক্যাথিকে এ নীরিক্ষামূলক টীকা দেওয়ার মাধ্যমে প্রথম পর্বের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এর সূচনা হলো।

এ পর্বে তিনশো জন সুস্থ স্বেচ্ছাসেবী অংশ নেবেন, চার সপ্তাহের ব্যবধানে দুটো ডোজ নেবেন তাঁরা।

সূচনা পর্বে কোভিড১৯ এর বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা তৈরির গুণগত সক্ষমতা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখে ডোজ নির্ধারণ করা হবে।

অক্টোবর নাগাদ দ্বিতীয় পর্বের ট্রায়ালে ছয় হাজার স্বেচ্ছাসেবী অংশ নেবেন এবং আগামী বছরের শুরুতে এটা যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বব্যাপী বিতরণ শুরু সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

কৃত্রিমভাবে প্রস্তুত এক লিটার টীকা সামগ্রী থেকে বিশ লক্ষ ডোজ তৈরী করা সম্ভব হবে।

ইম্পেরিয়াল কলেজের প্রফেসর রবিন শ্যাটক এ ট্রায়াল এর নেতৃত্ব দিচ্ছেন আর প্রধান গবেষক হিসেবে আছেন ডঃ ক্যাট্রিনা পোলোক।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি ও অস্ট্রাজানাকার AZD 1222 টীকার তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল জুলাই, ২০২০ এ শুরু হতে যাচ্ছে।

প্রায় দুশো সম্ভাব্য টীকার মধ্যে এ নিয়ে তেরটা নীরিক্ষাধীন টীকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হলো (যুক্তরাজ্য-২, যুক্তরাষ্ট্র-৩, চীন-৫, জার্মানি-১ অস্ট্রেলিয়া -১, রাশিয়া-১)।

লেখক : জেরিয়াট্রিক ও জেনারেল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ রেজিস্ট্রার, কুইন এলিজাবেথ দা কুইন মাদার হসপিটাল, মারগেট, কেন্ট, যুক্তরাজ্য।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *