বুধবার | ১২ই আগস্ট, ২০২০ ইং |

জীবন জীবনের জন্য মানুষ মানুষের জন্য…

আমাদের পৃথিবীই একটাই।
জীবনও শুধু একবারের জন্যই। জীবনের পরিধি খুব ছোট। কিন্তু এই জীবন ঘিরে ভালবাসার ব্যাপ্তি বিশাল, সীমান্তবিহীন। পৃথিবী আজ অসুস্থ। সাধারণ চোখে দৃশ্যমান নয় এমন একটি ভাইরাসের কাছে আজ মানবজাতি পর্যুদস্ত। চারদিকে শংকা, ভয়-ভিতী, মৃত্যুর মিছিল। এই সংকটময় সময়ে আমার স্বদেশে যেমন কিছু অমানবিক মানুষ, মুর্খ ইমাম, ধান্ধাবাজ ওয়াজকারী, ত্রাণচোর, চাউলচোর, দায়িত্বহীন কথাবার্তার মন্ত্রী, রাজনীতিবিদের দেখা মিললো।

পাশাপাশি অগণিত মানবিক মূল্যবোধের মানুষ, জনগণের সেবক, সময়ের সাহসী সন্তানদেরও দেখা মিললো। সরকার প্রধান অন্তর দিয়েই সব কিছু করার চেষ্টা করছেন। চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের অধিকাংশই তাঁদের মানবিকতার প্রমাণ রাখছেন এবং রেখেছেন। নিজের এবং পরিজনের কথা না ভেবে ঝুঁকি নিয়েই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ভাইরাস আক্রান্তদের। সেবা দিতে গিয়ে তাঁদের মধ্যে অনেকে সংক্রমিতও হয়ে পড়েছেন। ইতোমধ্যে মৃত্যুকেও আলিঙ্গন করেছেন তাঁদের দুচারজন।

শুধু কলা-রুটি খেয়ে দিনভর সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তাঁদের কেউ কেউ। এগার মাসের দুগ্ধপোষ্য শিশুকে ঘরে রেখে দিনমান সেবা দিয়ে যাচ্ছেন একজন মহিলা চিকিৎসক। নিজ পরিবার থেকে একাকী হয়ে মানব সেবা করে যাচ্ছেন অনেক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী।

আত্মীয় -পরিজন যখন মানবিক গুণ হারিয়ে ফেলেছে। করোনায় আক্রান্ত আপন স্বজনকে সমাহিত করতে যখন তাঁরা ভীত, সেই সময় মানবিকতার পতাকা হাতে এগিয়ে এসেছে আমাদের পুলিশ বাহিনী। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে তাঁদের অসীম সাহসী ভূমিকার পুনরাবৃত্তি করছেন তাঁরা জাতির এই সংকটময় সময়ে। তাঁরা জীবনের ঝুঁকিকে অগ্রাহ্য করে সৎকার করছেন করোনায় মৃত ব্যক্তিদের।

যখন একজন অমানবিক, অধার্মিক, মুর্খ ইমাম করোনায় মৃত ব্যক্তির জানাজা পড়াতে পিছুটান দিয়েছে তখন একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেই মৃত ব্যক্তির জানাজা পড়াচ্ছেন। আমি মহৎ প্রাণ উপর্যুক্ত সব ব্যক্তি বর্গকে নতশিরে অভিবাদন জানাই। এরা সময়ের সাহসী সন্তান, মানবিকবোধ বোধসম্পন্ন দেশপ্রেমিক মানুষ। এরাই আমাদের অন্ধকার থেকে আলোতে নিয়ে যাবে, সংকটের উত্তাল ঢেউ পাড়ি দিতে এরা হবে হালের মাঝি।

অদৃশ্যমান এক ভাইরাস দানবের সাথে এখন অসম যুদ্ধ আমাদের। এ যুদ্ধে জয়ী হতেই হবে। গড়তে হবে জাতীয় ঐক্যগাঁথা। আমাদের সকল কালো কাব্য ছুঁড়ে ফেলে, জ্বালতে হবে আলোর মশাল। মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে মানুষকে। করোনা পরবর্তী যত সংকটই আসুক না কেন আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় তা কাটিয়ে ওঠা অবশ্যই সম্ভব হবে। বিকশিত হোক আমাদের মানবিকতা, আমাদের দেশপ্রেম।

লেখক : কবি ও সাহিত্যিক শাহজাহান চঞ্চল, রিয়াদ, সৌদি আরব ।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *