সোমবার | ১৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং |

নবনির্বাচিত মেয়র জিল্লুর রহমানের কৃতজ্ঞতা ও প্রতিক্রিয়া

এ কে আজাদ, ব্যুরো প্রধান, বর্তমানকন্ঠ ডটকম: ১০ অক্টোবর শনিবার চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল নয়টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত দুয়েকটি বিচ্ছিন্ন ছোটখাট ঘটনা ছাড়া ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হয়। এবারই প্রথম চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচন ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়। এটি চাঁদপুর পৌরবাসীর জন্যে জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে আরেকটি ধাপ অতিক্রম।
নির্বাচন উপলক্ষে ভোটারদের মধ্যে যথেষ্ট উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায়। এবারের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়। নির্বাচনী প্রচারণার পুরো সময়টি শান্তিপূর্ণভাবে অতিবাহিত হলেও নির্বাচন চলাকালীন কোথাও কোথাও প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে। ভোটাররা ইভিএমে অভ্যস্ত না হওয়ায় ভোট প্রদানে অপেক্ষাকৃত কিছুটা বেশী সময় প্রয়োজন হওয়ায় ভোট প্রদানের হার কিছুটা কম হয়েছে। করোনার কারনেও ভোটার উপস্হিতি কিছুটা কম হয়ে থাকতে পারে।
নির্বাচন সংশ্লিষ্ট নয় এমন একটি বচসার ঘটনায় আজ চাঁদপুরে এক কিশোর ছুরিকাহত হয় এবং উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকায় নেবার পথে মৃত্যুবরণ করে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আমরা এ কিশোর ইয়াসিনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।
চাঁদপুর পৌরবাসী তাঁদের মূল্যবান ভোট দিয়ে নৌকা প্রতীকে আমাকে জয়যুক্ত করায় আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের প্রতি আমি শুকরিয়া আদায় করি। সম্মানিত ভোটারদের প্রতি আমি গভীর কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই। আপনারা আমার ওপর যে আস্থা ও বিশ্বাস স্থাপন করেছেন আমি আমার সততা, আন্তরিকতা, নিষ্ঠা, মেধা, দক্ষতা ও আমার নিরলস পরিশ্রম দিয়ে আপনাদের সে আস্থা ও বিশ্বাসের পূর্ণ মর্যাদা রক্ষা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
আপনাদের নির্বাচিত পৌর মেয়র হিসেবে আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন, আমাকে সম্মানিত করেছেন, আপনাদের দেয়া এ দায়িত্ব আমি যথাযথভাবে পালনে আমার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করছি।
আমি আপনাদের দোয়া, শুভকামনা ও সহযোগিতা প্রত্যাশা করি। ইনশাআল্লাহ, পৌরবাসী হিসেবে আপনাদের সকল সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে আমি আপনাদের সাথে নিয়ে কাজ করবো।
একইসাথে পৌরসভা পরিচালনায় স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন নিশ্চিত করে নির্বাচনী ইশতেহারে দেয়া আমার অঙ্গীকার আমি অবশ্যই পালন করবো। এ শহরকে আমি আমাদের স্বপ্নের ঐতিহ্য, বাণিজ্য ও পর্যটন নির্ভর নান্দনিক চাঁদপুরে পরিনত করবো ইনশাআল্লাহ।
আমি আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড এবং সর্বোপরি আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা, দেশরত্ন, জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমার গভীর কৃতজ্ঞতা জানাই আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিয়ে চাঁদপুর পৌরবাসীকে সেবা করার সুযোগ প্রদানের জন্য। আমাদের চাঁদপুর ও হাইমচরের উন্নয়নের রূপকার, মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি আপার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে তাঁর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে নিজেকে নিয়োজিত করতে পেরে গর্বিত।
এ নির্বাচনটির জন্য আমাদের দীর্ঘদিন কাজ করতে হয়েছে। আপনারা জানেন যে বিএনপির প্রার্থীর মৃত্যুতে নির্বাচনটি প্রথমে স্থগিত হয়ে যায় এবং পরে করোনা মহামারীর কারনে আরো বিলম্ব ঘটে। চাঁদপুর জেলা, সদর উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, মহিলা লীগ, যুব মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগসহ আমাদের সকল সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এই দীর্ঘদিন এই নির্বাচনের জন্য নিরলস পরিশ্রম করেছেন। তাঁদের সকলের প্রতি আমি আমার শ্রদ্ধা, ভালোবাসা, কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানাই। আজকের এ বিজয় আপনাদের নিরলস পরিশ্রমের ফসল। আমি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জানাই চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মানিত সহ-সভাপতি ডাঃ জাওয়াদুর রহিম ওয়াদুদের নেতৃত্বাধীন আমাদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটিকে তাঁদের দূরদৃষ্টি, প্রজ্ঞা, কঠিন শ্রম এবং বলিষ্ঠ নেতৃত্বের জন্য। আমাদের এ নির্বাচনে বরাবরের মতই চাঁদপুরের সাংবাদিক, সংস্কৃতিকর্মী, ব্যাবসায়ী ও পেশাজীবীসহ বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ তাঁদের গুরুত্বপূর্ণ সমর্থন ও সহায়তা প্রদান করেছেন। আমি তাঁদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞ। আমার পরিবারের প্রতিটি প্রিয়জনের কাছে আমি তাঁদের ধৈর্য্য, দোয়া, ভালোবাসা ও সহযোগিতার জন্য ঋণী।
নির্বাচন পরিচালনায় দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচন কমিশন, জেলা, উপজেলা প্রশাসন, প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং কর্মকর্তাবৃন্দ, পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব, আনসারসহ সকল আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যাক্তিবর্গ এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
এবারও বিএনপি তার অতীতের আচরণের ধারাবাহিকতায় নির্বাচনের দিন মাঝপথে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবার ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিটি নির্বাচনেই যখনই তারা তাদের পরাজয় নিশ্চিত বুঝতে পারে তখনই তারা এধরণের একটি নাটকের অবতারণা করে। এবারও তার ব্যাতিক্রম হয়নি। এটি সুস্থধারার রাজনীতির জন্যে সহায়ক নয়। আমি আশা করবো আগামী দিনে তারা নেতিবাচক রাজনীতির পথ পরিহার করে ইতিবাচক রাজনীতির ধারায় শামিল হতে সচেষ্ট হবেন।
আমি নির্বাচনে যারা জয়যুক্ত হয়েছেন এবং যারা অংশ নিয়েছেন সবাইকেই সঙ্গে নিয়ে চাঁদপুরের পৌরবাসীর সেবায় কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।
জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।
জিল্লুর রহমান জুয়েল

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *