সোমবার | ৩রা আগস্ট, ২০২০ ইং |

মানববন্ধনে বক্তারা – ‘রিজেন্ট-জেকেজি’ কান্ড বিশ্বে বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করেছে

বর্তমানকন্ঠ ডটকম, ঢাকা : করোনার পরীক্ষার নামে ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি গোটা বিশ্বে বাংলাদেশকে কলংকিত করেছে বলে মন্তব্য করে বক্তারা বলেন, পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে এমন ন্যক্কারজনক ও নজিরবহিীন ঘটনা ঘটেছে বলে মনে হয় না। বাংলাদেশ এই ইতিহাস তৈরি করেছে। কারণ এ দুই প্রতিষ্ঠানের ভুয়া রিপোর্টের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এখন বাংলাদেশকে না করছে। বাতিল করছে ফ্লাইট। বিদেশে গেলেও ফেরত পাঠাচ্ছে। প্রায় সব দেশই করোনা সাটিফিকেট বাধ্যতামুলক করেছে। একমাত্র বাংলাদেশেই এই সমস্ত কিছু লোক টেস্টের নামে আমাদের দেশকে কলঙ্কিত করেছে।

সোমবার (১৩ জুলাই ২০২০) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নিরাপদ খাদ্য ও ভোক্তা অধিকার আন্দোলন, বাংলাদেশ’র উদ্যোগে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম এবং জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা দম্পতির ভুয়া করোনা রিপোর্টে প্রতারনার শিকার ব্যাক্তিদের আর্থিক ক্ষতিপুরণ প্রদান, তাদের প্রয়োজনে পুন:পরীক্ষার ব্যবস্থা ও ভুয়া করোনা রিপোর্ট প্রদান কান্ডে জড়িত ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানসমূহের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও দুর্নীতিমুক্ত স্বাস্থ্যখাতের নিশ্চিতের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা একথা বলেন।

আয়োজক সংগঠনের প্রধান নির্বাহী কামরুজ্জামান বাবলুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পাটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, আয়োজক সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি শহীদুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক নোমান মোশাররফ, প্রচার সম্পাদক মাহমুদুর রহমান খান বাপ্পী, দফতর সম্পাদক আব্দুল আজিজ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক ঈমাম হাসান, নির্বাহী সদস্য নূর মোহাম্মদ ও গিয়াস উদ্দিনসহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

সংহতি প্রকাশ করে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক বলেন, সরকারের প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় সাহেদ সাবরিনারা তাদের অপকর্ম করেছে। তারা মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। এভাবে একটা দেশ চলতে পারে না।

তিনি অবিলম্বে পলাতক সাহেদকে গ্রেফতার করে অপরাপর দোষীদেরও আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের দাবী করেন।

তিনি আরো বলেন, দু’তিন জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের অপকর্মের ফল এখন গোটা জাতিকে ভোগ করতে হচ্ছে। সাহেদ সাবরিনাদের অপকর্ম আমাদের রাষ্ট্রীয় সম্মানে আঘাত হেনেছে। রাষ্ট্রের অনেক অর্জনকে ম্লান করে দিচ্ছে। এদের এখনই না থামালে সরকারকে আরো বড় মাপের খেসারত দিতে হবে।

বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূইয়া বলেন, সাহেদের রিজেন্ট হাসপাতাল ও ডা. সাবরিনা দম্পতির জেকেজি হেলথ কেয়ার ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে নমুনা সংগ্রহ করে কোনো পরীক্ষা না করেই হাজার হাজার নিরীহ মানুষকে ভুয়া করোনার রিপোর্ট প্রদান করেছে। জেকেজি হেলথ কেয়ার কোনো পরীক্ষা না করেই ১৫ হাজার ৪৬০ জনকে করোনার টেস্টের ভুয়া রিপোর্ট সরবরাহ করেছে।

তিনি বলেন, তাদের এ অপকর্মের দায়ে লক্ষ লক্ষ প্রবাসী শ্রমিক ও অভিবাসী আজ কর্মহীন হয়ে পড়ার আশঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে চললে অল্প কিছু দিনের মধ্যেই বাংলাদেশ গোটা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে।

সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের প্রধান নির্বাহী কামরুজ্জামান বাবলু স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতিবাজদের আইনের আওতায় এনে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি জানান।

তিনি বলেন, করোনা মহামারী আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে আমাদের দেশের স্বাস্থসেবা কোন পর্যায়ে আছে। এখনই সময় স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়ন করার। অন্যথায় দেশে আরও বড় বিপদের সম্মুখীন হবে।”

একই সঙ্গে ডাক্তার-নার্সদের খাবার কেলেঙ্কারীর বিচার, করোনা প্রতিরোধ সামগ্রীতে ভেজাল ও উচ্চমূল্যরোধে ব্যবস্থা গ্রহণ, সাধারণ রোগীদের করোনা চিকিৎসায় কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ, ব্যাপক হারে অ্যান্টিবডি কিটের ব্যবহার নিশ্চিতে সকল বাধা দূর, স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতির গডফাদাদারদের চিহ্নিত করা, পৃথক স্বাস্থ্য কমিশন গঠন, আমলাতন্ত্র নয়, চিকিৎসক ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ দ্বারা স্বাস্থ্য খাতের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন ও স্বাস্থ্য বাজেটের ৫০% স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে ব্যয় করার দাবি জানান তিনি।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *