রবিবার | ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং |

স্বাধীনতার প্রথম স্বপ্নদ্রষ্টা মাওলানা ভাসানী: খা‌লেদা

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: মজলুম জন‌নেতা মাওলানা আব্দুল হা‌মিদ খান ভাসানী‌কে আধিপত্যবাদ বি‌রোধী আন্দোল‌নের প্রবাদ পুরুষ আখ্যা দিয়ে বিএন‌পি চেয়ারপারসন খা‌লেদা জিয়া বলেছেন, স্বাধীনতার প্রথম স্বপ্নদ্রষ্টা ছিলেন মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী।

মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠা‌নো এক বাণীতে তি‌নি এসব কথা ব‌লেন।

‌বাণীতে খা‌লেদা জিয়া ব‌লেন, এদেশে আবারও গণবিরোধী শক্তি গায়ের জোরে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে গণতন্ত্রে স্বীকৃত মানুষের সকল স্বাধীনতাকে হরণ করে নিয়েছে। আর জনগণের মতামতকে অগ্রাহ্য করে দেশবিরোধী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বর্তমানে বাংলাদেশকে যেদিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে তাতে জাতীয় স্বাধীনতা বিপন্ন হয়ে পড়ছে।

‌বিএন‌পি চেয়ারপারসন ব‌লেন, বাংলাদেশ প্রতিদিনই কোন না কোনভাবে আগ্রাসী শক্তির দ্বারা আক্রান্ত হচ্ছে। আমাদের ভূ-প্রাকৃতিক পরিবেশ, মাটি, মানুষ ও সংস্কৃতির ওপর চলছে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নিরবচ্ছিন্ন আগ্রাসন। তাই এই মুহূর্তে আধিপত্যবাদী শক্তি এবং তাদের এদেশীয় প্রতিভূদের রুখতে মওলানা ভাসানী প্রদর্শিত পথই আমাদের পাথেয়। আমরা সেই পথেই অপশক্তির অশুভ ইচ্ছাকে পরাস্ত করতে সক্ষম হবো।

সা‌বেক এই প্রধানমন্ত্রী আরও ব‌লেন, মাওলানা ভাসানী আমাদের জাতীয় ইতিহাসে এক প্রাতঃস্মরণীয় নাম। সাম্রাজ্যবাদ, ঔপনিবেশবাদ ও আধিপত্যবাদ বিরোধী সংগ্রামের প্রবাদ পুরুষ মাওলানা ভাসানী। তি‌নি ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে উপমহাদেশের নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের পক্ষে প্রতিটি গণআন্দোলনে আপসহীন নেতৃত্ব দিয়েছেন।

খা‌লেদা জিয়া ব‌লেন, ’৫০ এর দশকেই বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রথম সুর ধ্বণিত হয়েছিল তাঁর কণ্ঠে। তিনি দেশবাসীকে প্রথম স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছলেন।

‌বিএন‌পিপ্রধান ব‌লেন, মাওলানা ভাসানী দেশমাতৃকার মুক্তির পথপ্রদর্শক। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, গণতান্ত্রিক আন্দোলন এবং কৃষক শ্রমিক মেহনতি জনতার ন্যায্য অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ছিলেন প্রদীপ্ত এক আলোকবর্তিকা। তাঁর অবস্থান ছিলো শোষণের বিরুদ্ধে শোষিতের পক্ষে।

‌তি‌নি ব‌লেন, অধিকার আদায়ে মাওলানা ভাসানী এদেশের মানুষকে সাহস যুগিয়েছেন তাঁর নির্ভিক ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের দ্বারা। তাঁর হুংকারে কেঁপে উঠত অত্যাচারী শাসক ও শোষক গোষ্ঠীর মসনদ। জাতীর ভয়াবহ দুর্দিনে তিনি জনস্বার্থের পক্ষে থাকতেন আস্থা ও বিশ্বাসের অবলম্বন হিসেবে।

খা‌লেদা জিয়া ব‌লেন, অসহায় মানুষের ন্যায্য অধিকার আদায়, গণতন্ত্র, মানবাধিকার এবং স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব সুরক্ষায় মাওলানা ভাসানী আমাদের প্রেরণার উৎস। তাঁর নিখাদ দেশপ্রেম, দেশ ও জাতির স্বার্থ রক্ষা এবং গণতন্ত্র ও মানবতার শত্রুদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হতে যুগ যুগ ধরে আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করবে। তাঁর আদর্শকে সঠিকভাবে অনুসরণ করতে পারলেই আমরা আমাদের অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে সক্ষম হবো।

বাণীতে বেগম জিয়া মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে এই জনপ্রিয় জননেতার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *