মধুখালীতে কুমার নদী দখলমুক্ত ও পূনঃ খনন

শাহজাহান হেলাল,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭: এক সময়ের খর¯্রােতা কুমার নদী । আজ সে মৃত । ফরিদপুরের মধুখালী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের ভাটিকান্দী মথুরাপুর শ্রীপুর এলাকার মধথুরাপুর মৌজার বাশতলা বাজারের পূর্ব পাশের মৃত কুমার নদী সোমবার দখলমুক্ত করা হয়েছে।

উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. মনজুর হোসেনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় বেদখল হওয়া মৃত কুমার নদী উদ্ধার করে সরকারের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে বেকু (মাটি কাটার যন্ত্র) দিয়ে মাটি কেটে পানি প্রবাহের ব্যবস্থা করা হয়েছেন।

এ সময় মধুখালী পৌরসভার মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ আলী মিয়া, পৌর কাউন্সিলর মির্জা আবু জাফর, প্যানেল মেয়র মির্জা আব্বাস, আনিসুর রহমান লিটন, হাজী জাহিদুল ইসলাম জিন্নাহ, মোশাররফ হোসেন মুশাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে প্রভাবশালীদের দখলে থাকা নদী দখলমূক্ত করে মৃত কুমার নদী পূনঃ খনন করে পানি নিষ্কশনের সুব্যবস্থা করায় এলাকার জনগণের উপকারে আসবে।
নদীটি দখল মুক্ত এবং পানি নিষ্কশনের ব্যবস্থা করায় এলাকার মানুষ উচ্ছাসিত প্রশংসা করছে প্রশাসন ও সরকার প্রধান গণতন্ত্রের মানষ কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে।

উল্লেখ নদীটি দক্ষিণ -উত্তর মুখি হওয়ায় বাশতলা – গোপালদী মাহমুদুন নবী পিয়ারা মিয়া সড়কের অবস্থান। মৃত কুমার নদীতে পাকা কালবার্ড ব্রিজ নির্মাণ করা হয় কিন্ত স্থানীয় প্রভাব শালীরা কালবার্ডের উভায় পাশে মাটি ভরাট করে দখল করে নিলে পানি নিষ্কশন বন্ধ হয়ে যায়। যে কারনে মাহমুদুন নবী পিয়ারা মিয়া সড়কের দক্ষিণ পাশে একটু বৃষ্টি হলেই বিস্তৃত নীচু এলাকা জলবদ্ধতার সৃষ্টি হতো বাড়ী ঘরে জল প্রবেশ করায় ভুগান্তে পরতে হতো সাধারন মানুষের । নদী দখল মুক্ত ও পূনঃ খনন পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা করায় আর জলবদ্ধা হবে না বলে এলাকার মানুষ খুশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *