| ২৭শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৩ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২রা জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | সোমবার রূপগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২ – Bartaman Kanho

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

রূপগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২

নারায়ণগঞ্জ,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,শনিবার,২৫ নভেম্বর ২০১৭: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পার্ক দখলকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মাঝে কয়েক দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন।
আজ দুপুরে উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের জিন্দা এলাকায় ঘটে এ সংঘর্ষের ঘটনা।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জিন্দা এলাকায় অবস্থিত জিন্দা পার্ক প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকেই পরিচালনা করে আসছেন তাবারক হোসেন, কাজলসহ স্থানীয় লোকজন। একই এলাকার জাহাঙ্গীর মোল্লাসহ তার লোকজনও পার্কটি তাদের পরিচালনায় নিতে দীর্ঘ দিন ধরেই বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা চালিয়ে আসছেন। সকালে জাহাঙ্গীর মোল্লা, মোশারফ হোসেন বাবু, রুহুল মোল্লাসহ তাদের লোকজন এলাকায় হোন্ডা মহড়া দিয়ে আতঙ্কের সৃষ্টি করে। এনিয়ে হোন্ডা মহড়া দেয়া লোকজনের সঙ্গে তাবারক হোসেনের বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে তাবারক হোসেনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে প্রতিপক্ষের লোকজন। পরে দুপুরে উভয় পক্ষের লোকজন ধারালো ও বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১২ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে তাবারক হোসেন, কাজল, সায়েম, তোফাজ্জল হোসেন, আওলাদ হোসেন, সেলিম, জাহাঙ্গীর মোল্লা, রুহুল আমিন, সোহেল মোল্লাকে রাজধানীর অ্যাপলো হাসপাতালসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
সংঘর্ষ চলাকালীন সময়ে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। লোকজন ছুটাছুটি করতে শুরু করে।
খবর পেয়ে ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর সেলিম মিয়ার নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে পৌছে উভয় পক্ষকে ধাওয়া দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে জিন্দা এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় ফের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। ইন্সপেক্টর সেলিম মিয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোন পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেনি। কোন পক্ষ ফের ঝামেলার চেষ্টা করলে আইনের আওতায় আনা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *