Mon. Dec 9th, 2019

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

আবারও মাশরাফির ঝড়ো-ব্যাটে রংপুরের জয়

স্পোর্টস ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৭: আবারও মাশরাফির ব্যাটিং ঝলক। আবারও রংপুর রাইডার্সের জয়। বিপিএলের এবারের আসরে একটু আগেভাবে ব্যাট করতে নেমে রান পেয়েছেন মাশরাফি। সেই রানের ঝলকে সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে আরও একটি জয় পেলো রংপুর।

সিলেটের দেয়া ১৭৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জিয়া-ম্যাককালাম ও মাশরাফির ব্যাটিং কল্যাণে ৪ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে টম মুডির শিষ্যরা। রংপুরের পক্ষে জিয়াউর রহমান ১৮ বলে ৩৬, ম্যাককালাম ৩৮ বলে ৪৩, বোপারা ২৪ বলে ৩৩, নাহিদ ৭ বলে ১৪ ও মাশরাফি ১০ বলে ১৭ রান করেন।

এদিন টসে জিতে সিলেট সিক্সার্সকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায় রংপুর। তবে শুরুটা খুব একটা ভালো করতে পারেনি সিলেট। দলীয় মাত্র ১৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৫ রান করে নুরুল হাসান সাজঘরে ফিরেন। দলীয় ৩০ রানে ৪ রান করা অধিনায়ক নাসির হোসাইনকে দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করে প্যাভিলিয়নে পাঠান পেসার নাজমুল ইসলাম। দলীয় ৫৩ রানে ২৬ রান করা ফ্লেচারকেও ফেরান নাজমুল।

টপ অর্ডারের ৩ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ধুকতে থাকা সিলেটের ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন সাব্বির রহমান ও বাবর আজম। এই দুই ব্যাটসম্যান মিলে ৭৪ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নেন। সমান ৩৭ বলে বাবর ৫৪ ও সাব্বির ৪৪ রান করেন। শেষ দিকে ব্রেসনেনের ৫ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় অপরাজিত ১৬ রান সিলেটকে ১৭৩ রানের মজবুত পুঁজি এনে দেয়।

রংপুর রাইডার্সের পক্ষে নাজমুল ৩টি ও অধিনায়ক মাশরাফি ১টি উইকেট নেন।

১৭৪ রানের বড় লক্ষ্য সামনে রেখে একটু কৌশলী শুরু করে রংপুর। এরই অংশ হিসেবে আজ গেইলের সঙ্গী হয়ে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামেন জিয়াউর রহমান। সিলেটের মতোই রংপুরও শুরুতেই গেইকে হারিয়ে বিপাকে পড়ে। দলীয় ৭ রানের মাথায় পাকিস্তানি পেসার সোহায়েল তানভীরের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন ৩ বলে ৫ রান করা ক্রিস গেইল।

এর পর ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে নিয়ে ৫৯ রানের জুটি গড়েন জিয়া। আউট হওয়ার আগে জিয়ার ব্যাট থেকে আসে ১৮ বলে ৩৬ রান। শেষ ওভারে রংপুরের যখন ৯ রান দরকার তখন উইকেটে নাহিদুলকে নিয়ে মাশরাফি। ব্রেসনেনের প্রথম বলটি ওয়াইড হলে ৬ বলে রংপুরের দরকার হয় ৮ রান। ওভারের প্রথম বলেই ব্রেসনেনের ফুলটস বলটিকে মিডউইকেটের উপর দিয়ে সীমানা ছাড়া করেন অধিনায়ক মাশরাফি। এরই সুবাকে ২ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে রংপুর। ম্যাচসেরা হন জিয়াউর রহমান।

সিলেটের হয়ে সোহায়েল তানভীর, ব্রেসনেন, নাবিল সামাদ ও আবুল হাসান ১টি করে উইকেট দখল করেন।

এ জয়ের ফলে ৯ ম্যাচে সমান ১০ পয়েন্ট নিয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পরই চার নম্বরে রংপুরের অবস্থান। যদিও দুই ম্যাচ কম খেলেছে কুমিল্লা। অপরদিকে ১০ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৫ নম্বরে আছে সিলেট সিক্সার্স।

এদিকে দিনের অপর ম্যাচ শীর্ষে থাকা খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে লড়বে টুনামেন্টে সবচেয়ে কম ম্যাচে খেলে বেশি জয় পাওয়া তামিমের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *