Thu. Sep 19th, 2019

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

ফের শীর্ষে তামিমের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৭: ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে আরও একটি জয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। চলতি আসরে চট্টগ্রাম পর্বের শেষ ম্যাচে সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৪ রানে হারিয়ে আবারও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ফিরেছে তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নরা। আগের দিন খুলনা টাইটানসকে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছিল তামিম ইকবালের দল

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দেয়া ১৬৮ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ওপেনার এভিন লুইসকে হারিয়ে ধাক্কা খায় ঢাকা ডায়নামাইটস। তবে আরেক ওপেনার জো ডেনলি এক প্রান্ত আগলে রেখে দারুন লড়াই করে যান। কিন্তু সাদমান ইসলাম, সাকিব আল হাসান এবং সুনিল নারাইন তাকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন।

দলীয় ৬৩ রানে মোহাম্মাদ সাইফ উদ্দিনের বলে আউট হওয়ার আগে ৩৯ বলে ৬টি চার আর দুই ছক্কায় ৪৯ রান করেন জো ডেনলি। এরপর কাইরন পোলার্ড খানিকটা চেষ্টা করেন। কিন্তু দলের জয়ের জন্য সেটি যথেষ্ট ছিল না। ২৭ রান করে বিদায় নেন এই ক্যারিবীয়। মোসাদ্দেক ও জহুরুল সাঝঘরে ফেরার আগে সমান ১৭ রান করে সংগ্রহ করেন। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান তুলতে সমর্থ হয় ঢাকা ডায়নামাইটস। ফলে ১৪ রানে ম্যাচ জিতে নেন তামিমরা। ড্রোয়াইন ব্রাভো ৩টি এবং মোহাম্মাদ সাইফ উদ্দিন ২টি উইকেট নেন।

বুধবার (বুধবার) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং বেছে নেন ঢাকা ডায়নামাইটস অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। প্রথমে ব্যাটিং করার সুযোগটা ভালোভাবেই কাজে লাগিয়েছেন কুমিল্লার দুই ওপেনার অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। ৪৪ বল মোকাবেলায় ৬০ রান যোগ করেন তারা। ব্যক্তিগত ৩৭ রানে তামিম ফিরে যাওয়ায় প্রথম উইকেট হারায় কুমিল্লা। তার ২৩ বলের ইনিংসে ৫টি চার ছিলো।

এরপর ইমরুল কায়েসকে নিয়ে ইনিংস মেরামত করেন লিটন। ভালোই এগোচ্ছিলেন তারা। কিন্তু তাদের পথে বাধাঁ হয়ে দাঁড়ান তামিমকে শিকার করা ঢাকার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ৩৪ রানে থাকা লিটনকে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান সাকিব। ৩টি চারে ৩০ বল মোকাবেলায় নিজের ইনিংস সাজান লিটন।

লিটনের পর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি ইমরুলও। ২৬ রান করে বিদায় নেন তিনি। ১১৪ রানে ৩ উইকেট হারানোর পরও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারলন স্যামুয়েলসের ২৭ বলে ৩৯, পাকিস্তানের শোয়েব মালিকের ৪ বলে অপরাজিত ৯ ও হাসান আলীর ২ বলে ৮ রানের কল্যাণে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৬৭ রানের সংগ্রহ হয় পায় কুমিল্লা। স্যামুয়েলসের ইনিংসে ৫টি চার ও ২টি ছক্কা ছিলো। ঢাকার ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেভন কুপার ৩টি ও সাকিব ২টি উইকেট নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *