Thu. Sep 19th, 2019

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

উদ্যোক্তাদের ঋণপ্রাপ্তি সহজ করতে ব্যাপক উদ্যোগ নিয়েছে সরকার : আতিউর রহমান

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,শুক্রবার,১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ : বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশে সরকার এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংক কুটির-ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ঋণপ্রাপ্তি সহজ করার জন্য ব্যাপক উদ্যোগ নিয়েছে।

শুক্রবার ব্যাংককে ইউএনইএসসিএপ-এর আয়োজনে ‘ডিজাইনিং এ ফ্রেমওয়ার্ক ফর একসেস টু ফাইনান্স ফর এসএমইস’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণে এই সেমিনারে অংশ নেন বিভিন্ন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা, বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রতিনিধি, এল্যায়ান্স ফর ফাইনান্সিয়াল ইনক্লুশন, ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম, ইউএসসিডিএফ-এর প্রতিনিধি, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষক এবং এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বিভিন্ন দেশের অর্থ মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবু ইউসুফও গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন।

ড. আতিউর বলেন, গত আট বছরে বাংলাদেশে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উদ্ভাবনীমূলক এবং উন্নয়নমুখী ভূমিকার ফলে ক্ষুদ্র-কুটির ও মাঝারি উদ্যোক্তার ঋণপ্রাপ্তির পরিমাণ তিনগুণেরও বেশি বেড়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক কুটির-ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগে অর্থায়ন করার জন্য নীতিগত প্রেরণা দেয়ার পাশাপাশি যেসব ব্যাংক এ খাতে অর্থায়নে ভালো ভূমিকা রাখতে পেরেছে তাদের জন্য বিশেষ প্রণোদনার ব্যবস্থা করেছে। যেমন: এসএমই অর্থায়নের জন্য ব্যাংককে ভালো রেটিং দেয়া, বা নতুন শাখা খোলা বা রিফাইনান্সিং স্কিম চালু করার অনুমোদন দ্রুত দেয়া ইত্যাদি। এ সবের ফলে পুরো আর্থিক খাতে কুটির-ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ বিষয়ে একটি ইতিবাচকতা ছড়িয়ে পড়েছে।

তিনি আরো বলেন, ব্যাংক ও ক্ষুদ্র ঋণ সংস্থাগুলো একসঙ্গে কাজ করে কৃষি ও এসএমই খাতের জন্য ঋণ সরবরাহ করার যে উদ্যোগ বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে সেটিও এক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক হয়েছে। তবে এসএমই অর্থায়নে ব্যাপক অর্জন থাকলেও, এখনো এই খাতে অর্থায়ন যথেষ্ট নয়। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা, বিশেষত নারী ও তরুণ উদ্যোক্তারা যেন যথেষ্ট পরিমাণ অর্থায়ন পায় সেদিকে আমাদের নজর দিতে হবে। এজন্য নীতি প্রণয়নকারি এবং আর্থিক খাত নিয়ন্ত্রণকারিদের জাতীয় বাজেট থেকে একটি বিশালাকারের ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম তৈরির উদ্যোগ নিতে হবে। ঋণসহ অন্যান্য আর্থিক সেবার ক্ষেত্রে যেন এসএমই খাত অগ্রাধিকার পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। বিভিন্ন ব্যবসায়িক ফোরাম, চেম্বার, ক্রেডিট ব্যুারো এবং ক্ষুদ্রায়তনের পুঁজিবাজার গঠনের মাধ্যমে এসএমই খাতের জন্য আরও বেশি পরিমাণ অর্থ সরবারহ নিশ্চিত করতে হবে।

ড. আতিউর বলেন, ক্ষুদ্রঋণ সংস্থা ও বাণিজ্যিক ব্যাংকের সাথে কাজ করার মাধ্যমে কৃষি ও এসএমই খাতের জন্য অর্থায়ন নিশ্চিত করার উদ্যোগটির পরিসর আরো বাড়ানো দরকার। তিনি আধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে এসএমইর জন্য আর্থিক সেবা নিশ্চিত করার ওপর বিশেষ জোর দিয়েছেন।

বক্তব্য শেষে ড. আতিউর এ অঞ্চলের বিভিন্ন দেশে এসএমই অর্থায়নের ক্ষেত্রে গৃহীত সফল উদ্যোগগুলো যথাযথভাবে লিপিবদ্ধ করে এবং সেগুলোর বিশ্লেষণের ভিত্তিতে কাঙ্খিত নীতি পরিকাঠামো তৈরির আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *