খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে এসে গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম, সোমবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮: বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সিলেট যাওয়ার পথে স্বাগত জানাতে এসে নারায়ণগঞ্জে ১০, ভৈরবে ১১ ও নরসিংদীতে ৩ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার সকালে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে আড়াইহাজার উপজেলার পাঁচমুখী এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে জমায়েত হওয়ার চেষ্টা করেন নজরুল ইসলাম আজাদ, ধুপতারা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব, যুবদল নেতা সালাউদ্দিনসহ পাঁচজন। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পুলিশ ২০ থেকে ২৫টি গুলি ছোড়ে। পরে পুলিশ নজরুল ইসলাম আজাদসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে এলে আইনজীবী সাখাওয়াত হোসেন, আইনজীবী মাইনুদ্দীন, আইনজীবী আনোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে সকাল পৌনে ১০টার জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে বিএনপির নেতা-কর্মীরা মহাসড়কে ওঠার চেষ্টা করলে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। নেতা-কর্মীরা বিভিন্ন দিকে পালিয়ে যান। সেখান থেকে শোয়েব ও ইয়াসিন নামের বিএনপির দুই কর্মীকে আটক করে পুলিশ। নারায়নগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অপর দিকে সোমবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে ভৈরব উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. রফিকুল ইসলামের বাসা থেকে বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়াসহ ১১ জনকে আটক করে পুলিশ। পরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার আইনজীবী এবং বিএনপি নেতা সানাউল্লাহ মিঞাকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

ভৈরবে আটক ব্যক্তিরা হলেন- বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. মাজহারুল ইসলাম, ভৈরব উপজেলা বিএনপি সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ভিপি মো. বাহার মিয়া ও জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক তারিকুজ্জামান পার্ণেল, জেলা বিএনপির সহসভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা,শহর বিএনপির সভাপতি গোলাম কবির কামাল। অন্য চারজনের পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি সূত্র জানায়, আটক ব্যক্তিরা বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সিলেট সফরে তাকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন।

এছাড়াও নরসিংদী থেকে তিন বিএনপি নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা হলেন নরসিংদী জেলা বিএনপি সহ-সভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা, শহর বিএনপি সভাপতি গোলাম কবির কামাল এবং রায়পুরা থানা সাবেক বিএনপি নেতা জামালউদ্দিন চৌধুরী।

হজরত শাহজালাল (র.) ও হজরত শাহপরান (র.)-এর মাজার জিয়ারত করতে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সোমবার সকালে সিলেটের উদ্দেশে রওনা হন। তবে এটা কোনো নির্বাচনী প্রচারণা নয় বলে দাবি করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সকাল সোয়া নয়টার দিকে খালেদা জিয়া রাজধানীর গুলশানের বাসভবন থেকে সিলেটের উদ্দেশে রওনা হন।

খালেদা জিয়ার আগমনকে কেন্দ্র করে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে বিপুলসংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। বিএনপির কোনো নেতা-কর্মী বা পথচারীকে মহাসড়কের পাশে দাঁড়াতে দেয়া হয়নি পাশাপাশি স্বাগত জানাতে আসা নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

Be the first to comment on "খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে এসে গ্রেফতার"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*