এমপিওভুক্তির জন্য দুই কমিটি ঘোষণা

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,বুধবার,২০ জুন ২০১৮: বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮-এর ১৬(ক) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী এমপিওভুক্তির জন্য প্রতিষ্ঠান বাছাই করতে দুটি কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ।

বুধবার (২০ জুন) বিভাগের যুগ্মসচিব নুসরাত জাবীন বানু স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়।

কমিটিতে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিবকে (বেসরকারি মাধ্যমিক) আহ্বায়ক করে নয় সদস্যের কমিটি করা হয়েছে। কমিটিতে সদস্য রাখা হয়েছে মহাপরিচালক (ব্যানবেইস), যুগ্মসচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক), যুগ্মসচিব (আইন), পরিচালক (মাধ্যমিক) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, পরিচালক (কলেজ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব (কলেজ), সিনিয়র সহকারী সচিব (বাজেট)। এ ছাড়া কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন যুগ্মসচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক-৩)।

প্রজ্ঞাপনে তাদের কর্মপরিধি উল্লেখ করে বলা হয়েছে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ অনুযায়ী নতুন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করা।

সেখানে আরও বলা হয়েছে, প্রতিষ্ঠানের আবেদনে প্রদত্ত তথ্যে কোনো অনিয়ম বা অসামঞ্জসতা থাকলে তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করবে। প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয়ে সুপারিশও করবে তারা।

আরেক আদেশে বলা হয়েছে, ‘অনলাইন অ্যাপলিকেশন গ্রহণ ও ব্যবস্থাপনা’ কমিটি। এতে কমিটির প্রধান (সভাপতি) করা হয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষা ও পরিসংখ্যান ব্যুরো’র (ব্যানবেইস) মহাপরিচালককে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক-১), এই বিভাগের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট, বাংলাদেশ প্রকেৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) প্রতিনিধি, ইলেক্ট্রনিক ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (ইএমআইএস) সেলের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, অধিদপ্তরের প্রোগ্রামার এবং ব্যানবেইসের সিস্টেম এনালিস্ট।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) জাবেদ আহমেদ এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘অনলাই অ্যাপলিকেশনের মাধ্যমে এমপিওভুক্ত করা হবে। আবেদন করা প্রতিষ্ঠান শর্তপূরণ করেছে কি না-তা যাচাই করা হবে। শর্তপূরণ করা প্রতিষ্ঠান নম্বরের ভিত্তিতে এমপিভুক্ত হবে।’

উল্লেখ্য, এমপিওভুক্তির দাবিতে নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের ডাকে ওই অবস্থান কর্মসূচি চলার এক পর্যায়ে চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আন্দোলনরত শিক্ষক নেতাদের আশ্বস্ত করেন প্রধানমন্ত্রীর তৎকালীন একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান। আশ্বাসের ভিত্তিতে অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর ওই আশ্বাসের পর সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে বলা হচ্ছিল ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেটে নতুন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। গত ৭ জুন নতুন অর্থবছরের পেশকৃত বাজেট প্রস্তাবে এমপিওভুক্তির বিষয়ে কোনও কথাই বলেননি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এতে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে নতুন করে হতাশার সৃষ্টি হয়। আর এই হতাশা থেকেই আবারও লাগাতার আন্দোলনের ডাক দেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশন।

bknews2010

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *