নওগাঁয় সৎ পিতা কর্তৃক ১০ বছরের শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ!

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,বুধবার,২৭ জুন ২০১৮:নওগাঁয় নরপশু পিতা কর্তৃক ১০ বছর বয়সের সৎ কন্যাকে হত্যা সহ বিভিন্ন হুমকি দিয়ে দীর্ঘ ৫/৬ মাস ধরে ধর্ষণ (যৌন নির্যাতন) করে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, এমন অ-মানবিক সৎ পিতা কর্তৃক শিশু কন্যাকে ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটেছে জেলার মহাদেবপুর উপজেলার নওহাটা মোড় পুলিশ ফাঁড়ি এলাকার খোর্দ্দনারায়নপুর নিচপাড়া গ্রামে।

স্থানিয় কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিবেদককে জানান, খোর্দ্দনারায়নপুর নিচপাড়া গ্রামের মৃত হারেজ মন্ডলের ছোট ছেলে লম্পট আনিছুর রহমান (৪১) কয়েক বছরের ব্যবধানে পরপর ৩ টি বিয়ে করেন।

এমনকি তার প্রথম স্ত্রীর কন্যাকে নিজ গ্রামেই ভাতিজার সাথে বিয়েও দিয়েছেন। গ্রামের লোকজন আরো জানান, বর্তমানে লম্পট নারীলোভী আনিছুর রহমানের প্রথম ও তৃতীয় দুই স্ত্রী একই গ্রামে আলাদা বাড়িতে বসবাস করেন এবং মেঝ স্ত্রী ঢাকা শহরে বসবাস করেন।

সস্প্রতি তৃতীয় স্ত্রী বানু বেগম (৩৮) তার পূর্বের স্বামীর পক্ষের দুই সন্তান কন্যা লাভলী আক্তার লিজা (১০) ও পুত্র শামিম হোসেন (৪) কে নিয়ে স্বামীর সংসার করে আসছিলেন। নরপশু লম্পট সৎ পিতা আনিছুর রহমান তার স্ত্রীর অজান্তে ১০ বছর বয়সের সৎ কন্যা লাভলী আক্তার লিজাকে দীর্ঘ প্রায় ৫/৬ মাস ধরে কাউকে না বলার জন্য হত্যা সহ বিভিন্ন হুমকি দিয়ে ধর্ষণ (যৌন নির্যাতন) করে আসাকালে সোমবার নির্যাতিত শিশু লাভলী আক্তার লিজা (১০) তার মায়ের কাছে ঘটনাটি প্রকাশ করলে ঘটনাটি গ্রামবাসীর মাঝে জানাজানি হয়।

গ্রামবাসীর কাছে থেকে এ তথ্য পাওয়ার পরই মঙ্গলবার বিকালে খোর্দ্দনারায়নপুর নিচপাড়া গ্রামে বেরিয়ে আসে অ-মানবিক এ শিশু ধর্ষণ বা (যৌন নির্যাতনের) জঘন্যতম ঘটনা। শিশু লাভলী আক্তার লিজা নিজেই প্রতিবেদকের কাছে তার সৎ পিতা কর্তৃক ধর্ষণ (যৌন নির্যাতনের) পুরো ঘটনা খুলে বলেন।

লাভলী আক্তার লিজা প্রতিবেদককে বলেন, আমার সৎ পিতা আনিছুর রহমান আমার মাকে বিয়ে করার পর থেকেই আমার মা কাজে বাইরে গেলেই আমার ঐ সৎ পিতা আমার শরীরের কাপড় খুলে আমার সাথে খারাপ কাজ শুরু করেন, আমি ঘটনাটি মাকে জানাতে চাইলে আমাকে হত্যাসহ বিভিন্ন হুমকি দেওয়ার কারনে আমি মা বা কাউকে কিছুই বলিনি এমনকি আমাকে নওহাটামোড় বাজারে নিয়ে যেয়ে রাত হওয়ার পর বাসায় ফেরার পথে পাটের ক্ষেতেও আমার সাথে খারাপ কাজ করেছে তবুও আমি ভয়ে নিরব ছিলাম।

সোমবার আমার মা আমাকে বাড়িতে সৎ পিতার কাছে রেখে আমার নানার বাড়িতে গেলে, আমার ঐ নরপশু সৎ পিতা আনিছুর রহমান বাড়িতে আমাকে একা পেয়ে একের পর এক আমার সাথে নোংরা কাজ করতে থাকলে এবং আমি বাঁধা দিলেও আমার বাঁধা না শুনে আমাকে মারপিট করে আমার সাথে নোংরা কাজ চালাতেই থাকে, এসময় সুযোগ বুঝে আমি বাড়ি থেকে বাইরে চলে আসি এবং আমার মা বাড়িতে আসলে আমি মাকে সব ঘটনা বলে দেয়ায় আমার মা ঐ নরপশু সৎ পিতাকে গালিগালাজ করলে আমার সৎ পিতা প্রথমে ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য আমার মাকে ও আমাকে আবার ভয়ভতি দেখালে এসময় আমার মা প্রতিবাদ করলে নরপশু আনিছুর রহমান আমাদের থাকার ঘড়ে তালা লাগিয়ে সটকে পড়েন।

আমরা ঘড়ের বাইরে বারান্দায় আছি জানিয়ে, ঘটনার ন্যায় বিচার ও সৎ পিতা নামের ঐ নরপশুর বিচার ও দাবি করেন শিশু লাভলী আক্তার লিজা ও তার মা। অপরদিকে ৩ জন স্ত্রী থাকা সত্বেও সৎ কন্যাকে ধর্ষণ করার ঘটনাটি গ্রামবাসীর মাঝে প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেইে গ্রামের লোকজনরা ও পিতা নামের কলঙ্ক লম্পট নরপশু আনিছুর রহমানের শাস্তি দাবি করেছেন। সংবাদ লেখা পর্যন্ত লম্পট নরপশু আনিছুর রহমান ঘড়ে তালা লাগিয়ে গাঁ-ঢাকা দিয়েই আছেন বলেও স্থানিয় লোকজন প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

bknews2010

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *