পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম, সোমবার,১৬ জুলাই ২০১৮: কুষ্টিয়া ও ময়মনসিংহে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুজন মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। রবিবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।

কুষ্টিয়া: পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শহর আলী (৩৭) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। গড়াই নদীর তীরে শেখ রাসেল সেতুর কাছে রবিবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে।

শহর আলী কুষ্টিয়া শহরের মজমপুর এলাকার মনোয়ার বক্সের ছেলে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় কমপক্ষে ১২টি মাদকের মামলা রয়েছে বলে পুলিশের দাবি।

পুলিশ জানায়, মাদকদ্রব্য বেচার জন্য রবিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে একদল মাদক ব্যবসায়ী শেখ রাসেল সেতুর কাছে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে অভিযান পরিচালনা করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। উভয়ের মধ্যে গোলাগুলিতে শহর আলী গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

‘বন্দুকযুদ্ধের’ সময় কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই আতিকুর রহমানসহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে পুলিশ দাবি করেছে। কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

ময়মনসিংহ: সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। রবিবার দিবাগত রাত সোয়া ২টার দিকে রঘুরামপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মাদক ব্যবসায়ী আহসান উল্লাহ খান নোমান (৪০) নগরীর সেনবাড়ী এলাকার মঞ্জুরুল হক খানের ছেলে। কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান জানান, নোমান শহরের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ১৪টিরও বেশি মামলা রয়েছে।

পুলিশ জানায়, নোমান রঘুরামপুর এলাকায় মাদক বিক্রির জন্য অবস্থান করছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে ওই স্থানে পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নোমানের লোকজন গুলি করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে।

উভয় পক্ষের গোলাগুলির মাঝে পরে নোমান গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

bknews2010

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *