ধর্ষণের পর ভিডিও তুলে যা করতেন এই ‘বাবা’

ভারত ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,সোমবার,২৩ জুলাই ২০১৮:
ভারতের হরিয়ানার ফতেহাবাদে মন্দিরের প্রধান পুরোহিতের বিরুদ্ধে ১২০ জন মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠেছে। ওই ‘বাবা’র নাম অমরপুরী। তিনি ফতেহাবাদে বলাকনাথ মন্দিরের প্রধান পুরোহিত ছিলেন।

‘বাবা অমরবীর’ নামেও এলাকায় পরিচিত ছিলেন এই প্রভাবশালী মহন্ত। গত বেশ কিছুদিন ধরেই এই বাবার বিভিন্ন ভিডিও ঘুরছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই সব ভিডিওতে ছিল বিভিন্ন মহিলাকে বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণ করার ফুটেজ।

তদন্তে জানা গিয়েছে, ধর্ষণ করার ভিডিওগুলি নিজেই মোবাইল ফোনে রেকর্ড করতেন ও করাতেন অমরপুরী। তারপর সেই ভিডিও ধর্ষিতাকে দেখিয়ে চলত ব্ল্যাকমেল। টাকা আদায়ের পাশাপাশি চলত আরও নানান প্রতারণাও। তার বিরুদ্ধে অন্তত ১২০ জন মহিলাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ আছে।

ভিডিওগুলি সোশ্যাল মিডিয়াতে চলে আসার পরই তার এই কুকীর্তির কথা সামনে আসে। এইসব ভিডিও যাতে ছড়ানো না হয়, তার জন্য হুমকিও দেয় এই বাবা। কিন্তু ততক্ষণে আসরে নেমে গিয়েছে হরিয়ানা পুলিশ।

এক ধর্ষিতা মহিলার তরফেও পুলিশে অভিযোগ জানানোর পাশাপাশি একাধিক ধর্ষণের ফুটেজও জমা দেওয়া হয়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই শনিবার তাকে গ্রেফতার করে হরিয়ানা পুলিশ। পাশাপাশি তার বাসস্থান থেকেও মিলেছে বিভিন্ন আপত্তিকর সামগ্রী। আপাতত তাকে পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

ধর্মগুরুদের ধর্ষণ করার ঘটনা অবশ্য এই প্রথম নয়। ১৬ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণ করার দায়ে এই মুহুর্তে জেলে বন্দি আশারাম বাপু। দুই মহিলাকে ধর্ষণের দায়ে দোষী সাব্যস্ত রামরহিম সিংহও এখন জেলে। মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের ঘটনায় বারবার সামনে আসছে দিল্লি, রাজস্থান, গুজরাট ও হরিয়ানার নাম। ধর্ম, বর্ণ, জাতপাতের ভিত্তিতে ঘৃণামিশ্রিত অপরাধের তালিকাতেও এই রাজ্যগুলি একদম শীর্ষে।

bknews2010

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *