চট্টগ্রামে আর্ন্তজাতিক জনগনের স্বাস্থ্য সম্মেলন ২০১৮ ও স্থানীয় স্বাস্থ্য সমস্যা করনীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : চট্টগ্রামে আর্ন্তজাতিক জনগনের স্বাস্থ্য সম্মেলন ২০১৮ ও স্থানীয় স্বাস্থ্য সমস্যা করনীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় বক্তাগন স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় যথাযথ নাগরিক পরিবীক্ষন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা না হলে জনগনর সাংবিধানিক অধিকার ক্ষুন্ন হবে। 
 
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ১৫নং অনুচ্ছেদ এ সরকার দেশের সকল নাগরিকের স্বাস্থ্য নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু সরকারী স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় যথাযথ নজরদারি ও তদারকির অভাবে সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খুবই নাজুক। আর এ সুযোগে কিছু সুযোগ সন্ধানী চিকিৎসা ব্যবসা ও চিকিৎসা শিক্ষায় বানিজ্যিকিরণ করে জনগনের পকেট কাটছে। আর সরকারি নজরদারি না থাকায় জনগন কাংখিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। দেশীয় চিকিৎসা ব্যবস্থা এতটাই নাজুক হয়ে পড়েছে খোদ মন্ত্রী থেকে শুরু করে বড় বড় ব্যবসায়ীসহ বিত্তশালী জনগন চিকিৎসার জন্য পার্শ্ববর্তী দেশে পাড়ি জমাচ্ছেন। যার কারনে বিপুল পরিমান অর্থ বিদেশে পাচার হচ্ছে। এ অবস্থায় চিকিৎসা খাতে বরাদ্দ বাড়ানোর পাশাপাশি দেশীয় সরকারী-বেসরকারী চিকিৎসা ব্যবস্থায় যথাযথ নজরদারি, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। ২৮ অক্টোবর ২০১৮ইং নগরীর চান্দগাঁওস্থ আইএসডিই মিলনায়তনে পিপলস হেলথ মুভমেন্ট বাংলাদেশ এবং আইএসডিই বাংলাদেশ এর উদ্যোগে আর্ন্তজাতিক জনগনের স্বাস্থ্য সম্মেলন ২০১৮ ও স্থানীয় স্বাস্থ্য সমস্যা করনীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন বক্তাগন উপরোক্ত মন্তব্য করেন।
 
আইএসডিই বাংলাদেশ এর নির্বাহী পরিচালক ও ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারন সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরীর সঞ্চালনায় মতবিনিময় অতিথি ছিলেন পিপলস হেলথ মুভমেন্ট বাংলাদেশ এর স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য আমিনুর রসুল বাবুল ও অ্যাডভোকেট শরমিন সুলতানা ডেইজি। আলোচনায় অংশনেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট রেহেনা বেগম রানু, বরমা কলেজের অধ্যক্ষ মনসুর হাবিব, এমইএস কলেজের অধ্যাপক আবদুল হাই, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি নোমান আহমদ সিদ্দিকী, বিশিষ্ঠ নারী নেত্রী ও এডাব চট্টগ্রামের সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, নারী নেত্রী নুরজাহান খান, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মান্নান, বনফুলের নির্বাহী পরিচালক রেজিয়া বেগম, চট্টগ্রাম আইসবার মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আবদুল হান্নান, দৈনিক আমাদের নতুন সময়ের ব্যুরো প্রধান কামাল পারভেজ, যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থার কল্লোল দাস, প্রশিকার নিপুতি রঞ্জন দে, ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগরের যুগ্ন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, ক্যাব নেতা সেলিম জাহাঙ্গীর, সেলিম সাজ্জাত, হারুন গফুর ভুইয়া, জানে আলম, জেলা স্কাউটের সাবেক সম্পাদক অধ্যাপক শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, উদ্দীপনের আজহার আলী সরকার, মাস্টার মোহাম্মদ ইউসুপ, নারী নেত্রী রুবি খান, ফারহানা আকতার প্রমুখ।
 
সভায় বিভিন্ন বক্তাগণ বলেন স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় অনিয়ম, অরাজকতা ও নৈরাজ্যের কারনে দেশে সুশাসন প্রচন্ডহারে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। চিকিৎসা ব্যবস্থায় নৈরাজ্যের কারনে সরকারী চিকিৎসকগন সরকারি দায়িত্ব পালন বাদ দিয়ে বেসরকারী ক্লিনিকে রোগী দেখা, চিকিৎসা সেবা প্রদান, প্রেসক্রিপশনে বিপুল অংকের ফিস নেয়া, প্যাথলজিক্যাল টেস্টে মোটা অংকের কমিশন বানিজ্য, গর্ভপাতে সিজারিন করাসহ নানা ধরনের অপকর্মে পুরো চিকিৎসা ব্যবস্থায় নৈরাজ্য সৃষ্ঠি করছেন। অন্যদিকে মেডিকেল শিক্ষায় একজন ছাত্র ভর্তিতে বিশ থেকে ত্রিশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে। যার কারনে মেডিকেল শিক্ষা বানিজ্যিকীকরণের কারনে অনেক ব্যবসায়ী মেডিকেল কলেজ খুলে অবৈধভাবে ছাত্র ভর্তিতে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত, সেখানে শিক্ষার পরিবেশ ও মান আদৌ আছে কিনা, সে বিষয়ে সরকারের কোন ধরনের তদারকি নাই। বক্তাগন অভিযোগ করেন সরকারের বাজেটের আকার প্রতিবছর বাড়লেও চিকিৎসা খাতে ক্রমাগত কমছে। যা বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে তার সিংহভাগ অবকাঠামো ও বেতন-ভাতা খাতে বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। অন্যদিকে তৃণমুল পর্যায়ে প্রতিরোধমুলক স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় সরকারী-বেসরকারী বরাদ্দ ক্রমাগত হারে কমছে। তাই সরকারী-বেসরকারী খাতে প্রতিরোধমুলক স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ বাড়ানোর পাশাপাশি স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় নাগরিক পরীবিক্ষন বাড়ানো, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। সভা শুরুর পুর্বে বিশিষ্ঠ উন্নয়ন কর্মী এফআইভিডিবির প্রতিষ্ঠাতা যেহিত আহমদ ও ভিইআরসির নির্বাহী পরিচালক শেখ আবদুল হালিমের বিদেহী আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। 
বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

http://bartamankantho.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *