যৌন নিপীড়নের শিকার বাঁধন

বিনোদন প্রতিবেদক-বর্তমানকণ্ঠ ডটকম:
আজমেরী হক বাঁধন যিনি পর্দায় বাঁধন নামে পরিচিত। তিনি ২০০৬ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় রানারআপ হওয়ার মাধ্যমে পরিচিতি লাভ করেন।

বাঁধন ২০০৬ সাল থেকে তার কর্মজীবন শুরু করেন। ২০১৬ সালে তিনি তীরন্দাজ, ডিবি, মেঘের পরে মেঘ, সহযাত্রী, এই কূলে আমি আর ওই কূলে তুমি, নীল নির্বাসন ও রূপকথার মা ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন। এ ছাড়া তিনি আরএফএল ফার্নিচার ও কোকোলা নুডলসের টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজ করেন।

যৌন হয়রানির ‘#মি টু’ নিয়ে তিনি বলেন, ‘বুদ্ধি হওয়ার বয়স থেকে এখন পর্যন্ত এরকম অনেক নিপীড়নের শিকার হয়েছি। মাকে বলতেও পারিনি। এখন অবশ্য আমার মেয়েকে এসব সম্পর্কে শেখাই।

আমাদের এখানে মেয়েদের সেই অর্থে কোনো কিছু বলতে দেওয়া হয় না। মেয়েদের প্রতিবাদ কীভাবে করতে হয়, তা যদি ছোটবেলা থেকে শেখানো হতো, তাহলে ‘#মি টু’ পর্যন্ত যাওয়ার প্রয়োজন হতো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের বলা হতো, চেপে যাও চেপে যাও। এই চেপে যাওয়াকে প্রতিপক্ষ দুর্বল ভেবে আরও সুযোগ নেয়। এ ঘটনা কিন্তু সব জায়গায় ঘটে। কোথায় বাদ দেবেন। শুধু মিডিয়াকে বেশি প্রাধান্য কেন? নায়িকাদের সবকিছু শুনতে খুব মজা লাগে? এই জায়গাটা নষ্ট জায়গা প্রমাণ করতে মজা লাগে? নষ্ট তো আসলে সব জায়গা।’

বাঁধন বলেন, ‘আমি নানাভাবে যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছি। আপত্তিকর প্রস্তাবে অনেক কাজ বাদ দিয়েছি। যেখানে কিছু বিকিয়ে দিতে হবে, সেখান থেকে ফিরে এসেছি। তাদের নাম এখনই বলতে চাই না। সময় হলে ঠিকই বলব। যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছি, এটা মিডিয়ার অনেকেই জানেন। তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিবাদও করেছি।’

তিনি জানান, এই ইন্ডাস্ট্রিতে আরেক ধরনের মেয়ে আছেন, তারা বলেন আমার সঙ্গে এমন কিছুই হয়নি! আমি হিপোক্রেট (ভন্ড) হতে পারব না, আমার সঙ্গে অনেক হয়েছে।

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

http://www.bartamankantho.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *