‘শেখ হাসিনা সরকারে থাক‌লে আপনাদের দাবি পূরণ হবেই’

নিউজ ডেস্ক । বর্তমানকণ্ঠ ডটকম-
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন প্রাথমিক শিক্ষক‌দের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘শেখ হাসিনা যদি সরকারে থাকে, আপনাদের দাবি পূরণ হবেই। শেখ হাসিনা যদি বেঁ‌চে থা‌কে আপনাদের যত দাবি, তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। কারণ, তি‌নি শিক্ষক‌দের কথা বলেন, দেশের কথা ব‌লেন, দেশের মানুষের কথা ব‌লেন।’

বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের মিলনায়তনে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আয়োজনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন

জাকির হোসেন বলেন, ‘প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রথম সরকারিকরণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। চল্লিশ বছর পরে তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার শিক্ষকদের সরকারিকরণ করলেন। বাংলাদেশের মাটিতে আর কোনো সরকার কি আসেনি? এসেছে, তারা কি আপনাদের কথা ভেবেছে? ভাবেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি আপনাদের কথা ভেবেছেন। তিনি এখনো আপনাদের কথা ভাবেন যে কিভাবে আপনারা ভালো থাকবেন।’

তিনি বলেন, ‘আপনাদের যে সকল দাবিগুলো আছে, সে দাবিগুলো পূরণের জন্য মন্ত্রণালয়ে আমরা আলাপ আলোচনা করছি, সমাধানের কথা চলছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনাদের প্রধান শিক্ষকরা প্রতিদিন শিক্ষা অফিসে কাগজপত্র নিয়ে দৌঁড়াদৌঁড়ি করেন। এই কষ্ট লাঘবের জন্য আমরা একটা ব্যবস্থা করতে চাই, প্রত্যেক স্কুলে অফিস সহকারি দিতে চাই। আর সে কার্যক্রমও চলতি পথে।’

তিনি শিক্ষকদের প্রতি অভিযোগ এনে বলেন, ‘আপনারা সময় মতো স্কুলে যান না, প্রক্সি শিক্ষক দ্বারা ক্লাস নেন। এগুলো বন্ধ করতে হবে। প্রকৃত শিক্ষক যদি না হন, তবে মর্যাদা পাবেন না।’

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘এদেশে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করা হয়েছে শিক্ষার অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সব সময় আপনাদের সঙ্গে আছে। শেখ হাসিনা একটি কথাই বলেছেন, আমার প্রতি আপনারা আস্থা রাখেন, বিশ্বাস রাখেন। আপনারা যদি তার ওপর আস্থা না রাখেন, তবে কার উপর আস্থা রাখবেন।’

তিনি বলেন, ‘দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বঙ্গবন্ধু অনেক কিছুতেই হাত দিয়েছিলেন। কিন্তু সবার আগে হাত দিয়েছিলেন শিক্ষা ব্যবস্থার উপর। তিনি ড. কুদরত-ই-খুদা উপর দায়িত্ব দিয়েছিলেন বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কেমন হবে তার একটি প্রস্তাবনা তৈরি করার জন্য।’

বঙ্গবন্ধু হত্যার পর শিক্ষকরা কখনো মর্যাদা পাননি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান, এরশাদ, খালেদা জিয়া শিক্ষক সমাজকে লাঞ্চিত ও মর্যাদাহানী করেছে।’

সংগঠনের সভাপতি মো. আতিকুর রহমান আতিকের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ মো. আব্দুর রশিদ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *