নরসিংদীতে অধ্যক্ষের পদত্যাগের প্রতিবাদে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক | বর্তমানকণ্ঠ ডটকম:
নরসিংদীতে আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের অধ্যক্ষের পদত্যাগের প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন করে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা। রোববার দুপুর ১টা থেকে সড়ক অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবরোধ চলছে।

কলেজের মালিক পক্ষের সাথে মতবিরোধের জের ধরে কলেজের অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধা স্বপদ থেকে পদত্যাগ করেন। এদিকে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবোরোধে ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রাকচালকরাও মহাসড়কে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। সড়কে এলোমেলে অবস্থায় ট্রাক রেখে যানচলাচল বন্ধ করে দেয়। সড়ক অবরোধের ফলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে প্রায় ১৫ কিলোমিটার এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়ে শতশত যাত্রী।

জানা জায়, সম্প্রতি নরসিংদীতে আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের মালিক পক্ষের সাথে মতবিরোধ দেখা দেয় কলেজের অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধার। এরই জের ধরে রোববার সকালে অধ্যক্ষের পদ থেকে পদত্যাগ করেন অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধা। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষোব্দ হয়ে উঠে কলেজের শিক্ষার্থীরা। পরে পদত্যাগ প্রত্যাহারের দাবিতে সড়কে নেমে আসে শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।
খবর পেয়ে পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা চালায়। কিন্তু অধ্যক্ষকে স্বপদে পুনবহাল না করা পর্যন্ত অবরোধ থেকে সরবে না বলে জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। একই সাথে ক্লাস বর্জনের ঘোষণাও দেয়া হয়।এদিকে গত এক সপ্তাহে রহস্যজনক কারণে কলেজ থেকে বিভাগীয় প্রধানসহ ১৬ জন শিক্ষক কলেজ থেকে পদত্যাগ করেন।

কলেজের অভ্যন্তরীণ বিষয় জানা নেই উল্লেখ করে আইসিটি বিভাগের শিক্ষক এস এম মনিরুল ইসলাম বলেন, কলেজের অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধা স্যারের হাত ধরেই কলেজটি সারা দেশে খ্যাতি অর্জন করেছে। তাই হঠাৎ স্যারের পদত্যাগ করায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে শিক্ষার্থীরা।

কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী সাদিয়া আক্তার অমি বলেন, অধ্যক্ষ সব সময় আমাদের পিতার মতো করে লেখাপড়া করান। ওনার জন্যই আজ কলেজ দেশ সেরা কলেজে রুপান্তরিত হয়েছে। উনি না থকেলে কলেজের ফলাফলে ধস নামবে। তাই আমরা অধ্যক্ষ হিসেবে উনাকেই চাই।

কলেজের অপর শিক্ষার্থী অমিন বলেন, স্যার না থকেলে আমরা এইচএসসি পরীক্ষা বর্জন করব। অনিদিষ্টকালের জন্য ক্লাসও বর্জন করব।

এ ব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলেও তারা ফোন ধরেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *