Thu. Sep 19th, 2019

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

রিয়াদ বাংলা স্কুলে স্বাধীনতা দিবসে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, সৌদি আরব : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সৌদি আরবের রিয়াদে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আকিফা আহসান ও সওদা ইসলাম বুশরার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেলন বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সেলর মোঃ মেহেদী হাসান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালযের বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম, সিগনেটরী মোঃ আবদুল হাকিম, বোর্ড সদস্য সফিকুল সিরাজুল হক ও সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী নুর, অভিভাবক মোস্তাক আহম্মদ মন্ডল, সোহেল উল্লাহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোসতাক আহমেদ।

পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াতের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এহসানুলল রাফিদ আদিব, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন মুনতাহা আলমগীর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন ফারিয়া হুদা জাকিয়া ।

স্বাগত বক্তৃতায় প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ আফজাল হোসেন আগত অতিথি এবং শুভানুধ্যায়ীদের অনুষ্ঠানে সমাবেত হয়ে জাতীয় দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনে সহযোগিতা করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। তিনি মহান স্বাধীনতা আন্দোলনের স্থপতি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা সহ ত্রিশলক্ষ শহিদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করে স্বাধীনতা সংগ্রামের একটি সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরেন।

বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের সদস্য সফিকুল সিরাজুল হক স্বাধীনতা আন্দোলনে বীর শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। বোর্ড সিগনেটরী মোঃ আব্দুল হাকিম তার বক্তৃতায় এক সাগর রক্তের বিনিময়ে স্বধীনতা অর্জনে আত্মহুতি দানকারী বীর শহিদদের অসামান্য অবদানের কথা শিক্ষার্থীদের মাঝে তুলে ধরেন।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন বঙ্গবন্ধুর মত এক অবিসংবাদিত নেতা যিনি পরবর্তীতে বাঙালি জাতির পিতায় অভিসিক্ত হন তাঁর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণে আমাদের স্বাধীনতার বীজমন্ত্রটি লুকিয়ে ছিল। বাঙালি বীরের জাতি । তারা কখনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনি। বীরত্বের সাথে মাত্র নয় মাসে বিশ্বের মানচিত্রে বাংলাদেশকে স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। বিদ্যালয়ের আর্থিক অনুদানের জন্য এবং শেখ রাসেল মডার্ন কম্পিউটার ল্যাব প্রতিষ্ঠায় ল্যাবের সকল ইকুইপমেন্ট প্রদানে সকৃতজ্ঞতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দূতাবাসের রাষ্ট্রদূতসহ সকল কর্মকর্তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

প্রধান অতিথি তার বক্তৃতায় স্বাধীনতা আন্দোলনে আত্মোৎসর্গকারী বীর শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন। তিনি জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মহাসড়কে বীরদর্পে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়কে গর্বের বিষয় হিসেবে উল্লেখ করেন। এ ধারাবাহিকতা অব্যহত থাকলে আমরা অচিরেই উন্নত রাষ্ট্রের কাতারে সামিল হব।

সভাপতি তার বক্তৃতায় বলেন, বাঙালি জাতির আন্দোলনের ইতিহাস সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার ইতিহাস। সেই ১৭৫৭ সাল থেকে বাঙালি জাতি প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে আসছিলো। একসময় দেশ বিভক্ত হলো কিন্তু বাঙালি জাতির ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয়নি। পাকিস্তান নামক হানাদার রাষ্ট্র বাঙালি জাতিকে দমিয়ে রাখার নানা অপচেষ্টা করলেও বীর বাঙালি কখনো অন্যায়ের কাছে মাথানত করেনি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব মাত্র নয় মাসে স্বাধীনতা অর্জনে সক্ষম হয়।

অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রভাষক ও সাবেক বিভাগীয় প্রধান মুহাম্মদ দিলওয়ার হুসাইনের একুশের বই মেলায় প্রকাশিত কাব্য গ্রন্থ “নিঃশব্দ প্রেম” প্রকাশের জন্যে বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিাসিক ০৭ ই মার্চের ভাষণ সম্প্রচার এবং কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জন্য কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় । প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করেন অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানের বিশেষত্ব ছিলো খুদে শিক্ষার্থীদের অঙ্কিত স্বাধীনতার চিত্র প্রদর্শন। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিবেশিত দেশাত্মবোধক সংগীত ও নৃত্য প্রবাসীদের মাঝে দারুন আলোড়ন সৃষ্টি করে।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বীর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন প্রতিষ্ঠানের ধর্ম বিষয়ক শিক্ষক হাবিব মোমানী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *