আমরা কবে প্রধানমন্ত্রীকে চোর বললাম? রাহুলকে প্রশ্ন সুপ্রিমকোর্টের

নিউজ ডেস্ক | বর্তমানকন্ঠ ডটকম:
‘চৌকিদার চোর হ্যায়’ বিতর্কে ফের ঝামেলায় পড়লেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি দাবি করেছিলেন, ‘‘সুপ্রিমকোর্টও স্বীকার করে নিয়েছে ‘চৌকিদারই চোর’।’’

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) এই মন্তব্যের জেরে ভারতের প্রধান বিচারপতি কংগ্রেস সভাপতিকে তিরস্কার করেন। শেষ পর্যন্ত রাহুল আদালতে ক্ষমা চেয়ে নিলেও তাতে সন্তুষ্ট হয়নি শীর্ষ আদালত। আগামী সোমবার (৬ মে) আরও একবার হলফনামা জমা দিতে তাঁকে।

সুপ্রিমকোর্ট রাফালের চুরি যাওয়া নথিকে প্রামাণ্য হিসেবে গ্রহণ করার সিদ্ধান্তের পর রাহুল গান্ধী দাবি করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টও মেনে নিয়েছে চৌকিদারই চোর। জনসভায় গিয়ে সেকথা ফলাও করে ঘোষণাও করেন তিনি। সেখানেই শুরু বিপত্তি। বিজেপি অভিযোগ আনে, কংগ্রেস সভাপতি সুপ্রিমকোর্টের পর্যবেক্ষণের ভুল ব্যাখ্যা করে আদালতের অবমাননা করেছেন। এরপরই নোটিশ পাঠানো হয় রাহুলকে। ইতোমধ্যেই দু’দফায় সেই নোটিশের জবাব দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি। কিন্তু, তাঁর জবাবে সন্তুষ্ট নয় ভারতের শীর্ষ আদালত। সুপ্রিমকোর্টের পর্যবেক্ষণ, রাহুল যে হলফনামা জমা দিয়েছেন, তাতে ক্ষমা চাওয়া হয়নি।

রাহুলের আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভির উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ প্রশ্ন তুলেন, ‘‘আমরা কবে প্রধানমন্ত্রীকে ‘চোর’ বললাম!’’। এর উত্তরে সিংভি বলেন, ‘রাহুল নিজের মন্তব্যের জন্য দুঃখিত। এটা আমার ভুলেই হয়েছে। আমি ওকে ভুল বুঝিয়েছিলাম।’ ভারতের প্রধান বিচারপতি তখন পালটা প্রশ্ন করেন, ‘তাহলে আপনাদের হলফনামায় দুঃখপ্রকাশ করা হয়নি কেন?’ এর উত্তরে সিংভি বলেন, ‘আমরা আরও একবার হলফনামা জমা দিতে চাই।’

সুপ্রিমকোর্ট কংগ্রেস রাহুলকে হলফনামা দেয়ার জন্য আগামী ৬ মে পর্যন্ত সময় দিয়েছেন। সেদিনই এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

http://www.bartamankantho.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *