Sun. Nov 17th, 2019

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

সৌদি আরবে জাতীয় শোক দিবস পালিত

যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় সৌদি আরবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, সৌদি আরব : যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় সৌদি আরবের রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এ সময় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সৌদি আরবে বসবাসরত বাংলাদেশী চিকিৎসক, প্রকৌশলী, ব্যবসায়ী, শিক্ষক ও কমিউনিটির নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন পেশার অভিবাসীগণও উপস্থিত ছিলেন।

দূতাবাসে স্থাপিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এরপর রিয়াদস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন ও স্থানীয় প্রবাসীগণও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গনে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। আলোচনার শুরুতে শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করেন, শ্রম কাউন্সিলর মেহেদী হাসান, আসাদুজ্জামান, পাসর্পোট ও ভিসা উইং এর প্রথম সচিব কাজী নুরুল ইসলাম । এরপর জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে রিয়াদ দুতবাসের উপ-মিশন প্রধান ড. নজরুল ইসলাম বলেন, জাতির পিতার পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচারের রায়ের পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়নের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দুতাবাস সমুহ আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকরা জাতির পিতাকে হত্যার মাধ্যমে জাতির ইতিহাসে একটি কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করেছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলেও তাঁর স্বপ্ন, আদর্শ, চেতনা ও মূল্যবোধ ছড়িয়ে পড়েছে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে। নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে ২০২১ সালের মধ্যে একটি মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। তিনি নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শ তুলে ধরার আহবান জানান।
উপ-মিশন প্রধান প্রবাসী বাংলাদেশীদের, দেশের উন্নয়নে এবং যেকোনো প্রয়োজনে পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহবান জানান। তিনি বৈধ ভিসা ও প্রবাসে কাজের অবস্থা ও বেতনসহ অন্যান্য সুবিধাদি জেনে বিদেশে আসার জন্য দেশের মানুষকে সচেতন করার আহবান জানান।

দূতাবাসের কার্যালয় প্রধান ড. ফরিদ উদ্দিনের সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ডাক্তার শাহ আলম, আওয়ামী পরিষদ (আওয়ামী লীগ) এর সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এম আর মাহবুব, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রহমান চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের উপদেষ্ঠা ডাক্তার সমির দত্ত, কবি শাহজাহান চঞ্চল, রিয়াদ আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এম এ জলিল, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান ভূঁইয়া ইলিয়াছ, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান মুরাদ, আওয়ামী পরিষদ (আওয়ামী লীগ) এর সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস বিক্রম, শিবলী সিদ্দিকী ইকবাল, বাংলাদেশ আওয়ামী কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও রিয়াদ পূর্বাঞ্চল শাখার আহবায়ক গিয়াস উদ্দীন মজুমদার, মহানগর বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সৈয়দ এটিএম জিয়াউদ্দীন, আরিফুর রহমান কুদ্দুছ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক ইস্তিয়াক হোসেন তানিম, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, জাতীয় শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ জামাল, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ লিয়াকত, মহানগর আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শওকত ওসমান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আরকান শরিফ, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগের সভাপতি এইচ এম আলমগির হোসেন, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ইংরেজী শাখার মাহবুবর রহমান ও কবি বশির আহমদ প্রমূখ ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন শ্রম উইং এর জাহিদুল ইসলাম । অনুষ্ঠান শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তার পরিবারের শাহাদাৎ বরণকারি সকল সদস্যদের আত্মার শান্তি ও দেশ জাতির সুখ সমৃদ্ধি কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন রাফিউর রাব্বি । এরপর দূতাবাসের অডিটোরিয়ামে জাতির পিতার জীবন ও কর্মের ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এদিকে যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় সৌদি আরবের জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সকালে কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন কনসাল জেনারেল এফ এম বোরহান উদ্দিন। এরপর জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন ও স্থানীয় প্রবাসীরাও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। আলোচনার শুরুতে শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদত্ত বানী পাঠ করেন কনস্যুলেটের কর্মকর্তারা। এরপর জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়।

শোকদিবস উপলক্ষে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত বাংলাদেশ কারিকুলাম অনুযায়ী পরিচালিত একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে প্রতিষ্ঠানের বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের সম্মানিত চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোস্তাক আহম্মদের সভাপতিত্বে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক খাদেমুল ইসলামের সঞ্চালনায় এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বোর্ড অব ডাইরেক্টর্সের সিগনেটরী মো. আব্দুল হাকিম, কো-সিগনেটরী ইঞ্জিনিয়ার গোফরান, কালচারাল ডাইরেক্টর সিরাজুল সফিকুল হক, অভিভাবক মোসলেহ উদ্দিন মুন্না, মোস্তাক আহম্মদ মন্ডল, নন্দলাল সরকার, ইসা উল্লাহ প্রমুখ।

আলোচনাসভায় পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী এহাসানুল রাফিদ আদিব, রাষ্ট্রপতি প্রদত্ত বাণী পাঠ করেন বিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ইয়াসির গিয়াস ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আসমা আবেদীন। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো. আফজাল হোসেন বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের অসামান্য অবদানের কথা তুলে ধরেন।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের উপর প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শণ এবং শিক্ষার্থীদের জন্য কুইজের আয়োজন।বঙ্গবন্ধুর উপর রচিত রচনাবলীর উপর শিক্ষার্থীদের বই পাঠ এবং ক্ষুদে শিক্ষার্র্থীদের ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা। পরে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন হাবিব আহম্মদ নোমানী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *