| ১৭ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৩রা মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | শুক্রবার নেত্রকোণার গাজীপুর ইউপির মেওয়াতলী গ্রামবাসী সুশীল সাধু চক্রের কাছে জিম্মি – Bartaman Kanho

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

নেত্রকোণার গাজীপুর ইউপির মেওয়াতলী গ্রামবাসী সুশীল সাধু চক্রের কাছে জিম্মি

শ্রীঅরবিন্দ ধর | বর্তমানকন্ঠ ডটকমঃ
নেত্রকোণা জেলার খালিয়াজুরী উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের মেওয়াতলী গ্রামের সুশীল চন্দ্র সরকার ওরফে সাধু সরকার পিতা মৃত জয়গোপাল সরকার অসাধু চক্রের যোগসাজশে গ্রামবাসীর সাথে ভূয়া আমিন সেজে সাংঘর্ষিক ও জালিয়াতি কার্যকলাপ চালিয়ে সকলকে জিম্মি করে দুর্ঘটনার আতংকে ডুবিয়ে রেখেছে।

স্বরজমিন গ্রামবাসীর বৈঠকে আলোচনার মাধ্যমে জানাযায়, সুশীল চন্দ্র সরকার সাধূ মোহনগঞ্জ উপজেলার সোয়াইর ইউপির ভাটিয়া গ্রাম ছেড়ে মেওয়াতলী গ্রামে তার মামার বাড়ীতে থেকে স্থানীয় সকল হিন্দু পরিবারের সাথে নানারকম অসদাচারণে সংঘাতপূর্ন কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে দীর্ঘদিন যাবত।

ভূয়া আমিন হিসাবে মনগড়া জমি মেপে কাছারি থেকে কাগজপত্র সংগ্রহ করে গ্রামের সাধারন মানুষদের মাঝে পরস্পরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ সৃষ্টি করে টাকা রোজগার করার পথ বেছে নিয়েছে।

এ কার্যকলাপের ধারাবাহিকতায় কিছুদিন আগে বিধবা অসহায় মহিলা দিপালী রানী তালুকদারের নাবালক ছেলে দীপ্ত তালুদার (১৬) কে প্রলুব্ধ করে খালিয়াজুরী সাবরেজেষ্ট্রী অফিসে নিয়ে, মদন উপজেলার কাতলা গ্রামের মোঃ কামাল পিতা মৃত আক্তার উদ্দিন এর নামে একটি দলিল সম্পাদন করে নিয়েছে। দলিল নং ৩৪৮৩৮৮৪৪৭ ৭০৭ তাং ২৯/১০ /২০১৯ ইং। জমির পরিমান ০২ একর ৯৮ শতাংশ।

খালিয়াজুরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবরে জমা দেয়া দীপালী তালুদারের সাক্ষরিত এক অভিযোগে এ তথ্য জানা যায়।

মেওয়াতলী গ্রামবাসী সকলে মিলিত হয়ে ২৬-১১-২০১৯ ইং তারিখে খালিয়াজুরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে জমা দেয়া এক অভিযোগ থেকে জানা গেছে গ্রামে চলমান সংঘাতপূর্ন কর্মকান্ডের মূলহুতা উক্ত সুশীল সরকার সাধু।
সাধূ নামের কলঙ্ক স্বরূপ অসাধু কার্যকলাপ।

অভিযোগ সূত্রে আরো প্রকাশ সন্ত্রাসী ও জালিয়াতির মাধ্যমে জমিতে অবৈধ দখলকারীদের সহায়তাকারী উক্ত সুশীল সরকার ও তার সন্ত্রাসীচক্র। দীর্ঘদিন যাবত সে সংঘবদ্ধ চক্রের মাধ্যমে গ্রামের নীরিহ সহজ সরল সাধারন মানুষদের বিরুদ্ধে সংঘাত ও অপরাধ মূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

স্বরজমিন মেওয়াতলী গ্রামবাসী মিলিত হয়ে জানায় সুশীল চন্দ্র সরকার পিতা মৃত জয় গোপাল সরকার তার বসত বাড়ীর গোয়ালঘর ও বনের লাছে নিজে আগুন লাগিয়ে এবং বসতঘরের টীনের বেড়া কুপিয়ে হৈচৈ করে নিজে বাঁচার জন্য গ্রামের মানুষকে দোষারূপ করে। গ্রামের কালী মন্দিরে ঐদিন কালীপূজায় সকলেই আনন্দে মেতে ছিলো।
ঘটনাটি ঘটায় গত ৩০ নভেম্বর রাত প্রায় ১১টার সময়।

পরবর্তীতে ৮ ডিসেম্বর চক্রান্তমুলক ভাবে বিজ্ঞ দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল নেত্রকোণা গ্রামের সাধারন নীরিহ মানুষ ১৮ জনকে আসামী করে মামালা দায়ের করে। মামলা সি, আর মোঃ নং –(১) ১৯

এ ব্যাপারে গাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমানের সাথে মোবাইলে কথা বলে জানাযায় তিনি মেওয়াতলী গ্রামে শান্তি বজায় রাখতে চেষ্টা করে চক্রান্তকারীদের কাছে ব্যার্থ হয়েছেন, সুশীল সরকার সংঘবদ্ধ চক্রের প্রভাবে
অনেকদিন যাবত এ সমস্ত জালিয়াতির কাজ করে যাচ্ছে। নিজে আগুন দিয়ে মিথ্যা মামলা করেছে। যাদের আসামী করেছে তাদের বীজতলা বিনষ্ট করে দিচ্ছে এই সুশীল সরকার।

নেত্রকোণা থেকে কয়েকজন সাংবাদিক তথ্য নিতে এসেছিল শুনেছি। তাই আপনারা সত্য ঘটনা পত্রিকায় প্রকাশ করলে, প্রশাসনের দৃষ্টিতে সঠিক দোষী ব্যাক্তিরা শাস্তি পাইলে যদি গ্রামের মানুষগুলি শান্তিতে বসবাস করতে পারে।

ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মাঘান ইউপির চেয়ারম্যান কায়কোবাদ কে ও এসমস্ত ঘটনার ব্যাপারে অবগত করেছে বলে জানায়। কিন্তু কোন ফল হয়নি। তাই কঠোর আইনানুগ ব্যাবস্হা ছাড়া সুশীল সরকারের সংঘবদ্ধ দলকে দামানো যাবে না।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *