| ১৭ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৩রা মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | শুক্রবার সৌদি আরবে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন ও মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা শুরু – Bartaman Kanho

Bartaman Kanho

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম

সৌদি আরবে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন ও মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা শুরু

সৌদি আরবে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন ও মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা শুরু

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, সৌদি আরব : ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন ও জন্মশত বার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপনের ক্ষণগণনা শুরু সৌদি আরবে।
বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালনের ব্যাপক প্রস্তুতিকে সামনে রেখে এবার বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়। আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী। বাংলাদেশ এ বছরের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন করবে। এদিন থেকেই মুজিববর্ষ উদযাপন শুরু হবে। আর বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের এই দিনে সারাদেশ এবং বিদেশে বাংলাদেশ মিশনে শতবর্ষ উদযাপনের কাউন্টডাউন শুরু হয়।
দিবসটি উপলক্ষে রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাস ও জেদ্দা বাংলাদেশ কনস্যুলেটে ছিল নানা আয়োজন । রিয়াদ দূতাবাসে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মিশন উপ-প্রধান ডক্টর মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম । আলোচনায় অংশ নেন এস এম আনিসুল হক, ডক্টর আবুল হাসান ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ ছিদ্দীকি । প্রেস উইং এর প্রথম সচিব ফখরুল ইসলামের সঞ্চালনায় দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন, শ্রম কাউসন্সেলর আসাদুজ্জামান ও শফিকুল ইসলাম । কম্যুনিটি নেতৃবৃন্দুর মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন রিয়াদ আওয়ামী পরিষদ (আওয়ামী লীগ) এর সভাপতি এম আর মাহবুব, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের সভাপতি ডক্টর রেজাউল করিম, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ডাক্তার কাজী মাসুদুর রহমান সহ আরও অনেকে । আলোচকরা বলেন, পাকিস্তানের বন্দীদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এদিন বেলা ১টা ৪১ মিনিটে জাতির এই অবিসংবাদিত নেতা সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন। তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান। তারপর দিল্লি হয়ে ঢাকা ফেরেন।

তারা বলেন, পাকিস্তানের সামরিক শাসক জেনারেল ইয়াহিয়া খানের নির্দেশে তাকে গ্রেপ্তার করে তদানীন্তন পশ্চিম পাকিস্তানের কারাগারে নিয়ে আটক রাখা হয়। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সৈন্যদের বিরুদ্ধে নয় মাস যুদ্ধের পর চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হলেও ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মধ্য দিয়ে জাতি বিজয়ের পূর্ণ স্বাদ গ্রহণ করে।
তারা বলেন,১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয়ের পর বাঙালি জাতি বঙ্গবন্ধুকে প্রাণঢালা সংবর্ধনা জানানোর জন্য আকুল হয়ে অপেক্ষায় ছিল। আনন্দে আত্মহারা লাখ লাখ মানুষ ঢাকা বিমান বন্দর থেকে রেসকোর্স ময়দান পর্যন্ত তাকে স্বতঃস্ফূর্ত সংবর্ধনা জানান। বিকাল পাঁচটায় রেসকোর্স ময়দানে প্রায় ১০ লাখ লোকের উপস্থিতিতে তিনি ভাষণ দেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *