নরসিংদীতে গণধর্ষণ ও হত্যার দায়ে ৩ জনের ফাঁসির দন্ডাদেশ

খন্দকার শাহিন,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: নরসিংদীর শিবপুরে ২০১৫ সালে এক নারীকে গণধর্ষণ ও হত্যার দায়ে তিনজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হলো, সুলতান মিয়া ওরফে জামাই সুলতান, শফিকুল ইসলাম শরীফ ও ওসমান গণি।
আসামী সুলতান মিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর থানার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত: হোসেন আলী বেপারীর ছেলে, শফিকুল ইসলাম একই উপজেলার মধ্যপানান গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে এবং ওসমান গণি নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার জয়নগর গ্রামের মৃত: আ: মোতালিবের ছেলে।
এরমধ্যে তিন জনকেই ২০১ ধারায় ৭ বছরে করে সশ্রম কারাদন্ড, সুলতানকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের কারাদ-সহ সকলকে ১০হাজার টাকা অংর্থদন্ড অনাদায়ে আরো তিনমাস করে কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়। বুধবার বিকেলে নরসিংদীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক মো: গোলাম রাব্বানী এ  আদেশ দেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২রা ফেরুয়ারী তৎকালীন শিবপুর থানার এসআই মিজানুর রহমান কলাগাছিয়া নদীর তীরে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার করে, দীর্ঘ তদন্তের পর আসামীদের গ্রেফতার করে স্বীকারোক্তিতে নিহত মহিলার পরিচয় উদঘাটন করেন।
রাষ্ট্রপক্ষের স্পেশাল পি.পি রীনা দেবনাথ জানায়, ২০১৫ সালের ১ ফেরুয়ারী রাতে ভিকটিমকে আসামীরা ধর্ষন করে হত্যা করে। এ ব্যপারে ভিকটিমের নিকটাত্মীয়রা থানায় মামলা করলে থানা পুলিশ আসামীদের বিরুদ্ধে চার্জশীট প্রদান করে ২৪ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য প্রমানে দোষী প্রমানিত হওয়ায় আদালত এ রায় প্রদান করেন। এসময় রায় শুনার জন্য আদালত প্রাঙ্গনে শত শত লোক ভীড় করে।
নিহত মাহমুদা আক্তার ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল থানার কিসমত আহমদাবাদ (চানপুর) গ্রামের মৃত: বিল্লাল হোসেনের মেয়ে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -