রাজমিস্ত্রী ইজাজুল এখন শাকিব খান!

বিনোদন ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার রাজমিস্ত্রী ইজাজুল মিয়া এখন শাকিব খান! গত ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাওয়া ‘রাজনীতি’ ছবিতে অনুমতিবিহীন তার নাম্বারটি ব্যবহার করেন ছবির পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস। ছবিটি রিলিজের পর থেকেই শাকিব খান মনে করে ইজাজুলকে ফোনের পর ফোন দিতে শুরু করেন শাকিবভক্তরা।

এরমধ্যে নারীভক্তদের কলই বেশি আসছে ইজাজুলের কাছে। যতই তিনি নিজেকে রাজমিস্ত্রী পরিচয় দিচ্ছেন, তাতে কাজ হচ্ছে না। শাকিবভক্তরা তাকে সত্যি সত্যিই শাকিব খান মনে করছেন। প্রতিদিন এত এত ফোন কল আসায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে ইজাজুলের। তিনি এখন চরম বিরক্ত! শাকিব খানের নারীভক্তদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন বিবাহিত এই যুবক। এরইমধ্যে এক কিশোরী তাকে শাকিব ভেবে তার সঙ্গে দেখাও করেছে।

এদিকে রাজনীতি ছবির পাইরেটেড কপি ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়ায় সহজেই তা ডাউনলোড করছেন শাকিবভক্তরা। ফলে মোবাইল থেকে মোবাইলে ছড়িয়ে পড়েছে রাজনীতি। আর তাতে ইজাজুলের কাছে কল আসার মাত্রাও আগের চেয়ে বেড়ে যাচ্ছে। তবে মোবাইল নাম্বারটি বিশেষ একজন মানুষের দেওয়া বলে তা পাল্টাতেও পারছেন না ইজাজুল। কেনো এই বিড়ম্বনা? কোনো পরিচালকের তো অধিকার নেই কারো অনুমতি ছাড়া তার নাম্বারটি ছবিতে ব্যবহার করে তাকে যন্ত্রণা দেওয়ার।

এ বিষয়ে চলচ্চিত্র বিশ্লেষকরা জানান, কোনো তারকার নামে এভাবে সাধারণের নাম্বার ব্যবহার করলে সেই তারকারও ইমেজ নষ্ট হয়। পাশাপাশি একজন পুরুষ তারকার অনেক নারী ভক্ত রয়েছে। অপরিচিত বা সাধারণের নাম্বার তারকার নামে ব্যবহার করার ফলে নারী ভক্তরা ফোন করে তারকার সাথে দেখা করতে গিয়ে নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন।

এ বিষয়ে ছবির পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস বলেন, ‘আমি আমার ছবিতে এই নাম্বারটি ব্যবহার করার আগে বারবার যাচাই করে দেখেছি যে, নাম্বারটি সচল নয়। তাই এটি আমার ছবিতে কাজে লাগিয়েছি। যদি নাম্বারটি কেউ ব্যবহার করছেন জানতাম, তাহলে আমি তা এভাবে ব্যবহার করতাম না। আসলে এটা ভুলবশত হয়ে গেছে। শুটিংয়ের সময় আমার সহকারী এই নাম্বারটি দিয়েছিল, আমিও ব্যবহার করে ফেলেছি। এটা আসলে অনাকাক্সিক্ষত ভুল।’

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -