যৌন হয়রানি বন্ধে স্কুলছাত্রীদের অনশন ধর্মঘট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ হরিয়ানায় যৌন হয়রানি থেকে রক্ষা পাওয়ার দাবিতে ১৩ স্কুলছাত্রী অনশন ধর্মঘট করছে। প্রত্যহ যৌন হয়রানি শিকার যাতে বন্ধ হয় সে জন্য এই গত ৬ দিন ধরে এই ধর্মঘট করে আসছে তারা।

অনশন ধর্মঘট করা ওই ছাত্রীদের বয়স ১৬ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। তারা পাশ্ববর্তী একটি গ্রামের স্কুলে পড়ে। তাদের দাবি প্রতিদিন স্কুলে যাওয়ার সময় তাদেরকে যৌন হয়রানির শিকার হতে হয়।

ধর্মঘট পালনকারীরা বলছে, রেওয়ারি জেলার কর্মকর্তারা এই হয়রানি রুখতে ব্যর্থ হয়েছে। তবে বর্তমানে পুলিশ তাদের আগের চেয়ে উন্নত নিরাপত্তা দিতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

ভারত সরকার ওই ছাত্রীদের গ্রামে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে বিদ্যমান স্কুলকে আপগ্রেড করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, যাতে তাদের পাশ্ববর্তী গ্রামের স্কুলে যেতে না হয়।

কিন্তু অনশনরত শিক্ষার্থীরা বলছে, লিখিত আদেশ না পাওয়া পর্যন্ত তারা তাদের অনশন চালিয়ে যাবে। অনশন ধর্মঘট না করলেও কিছু ছাত্রছাত্রী এবং তাদের পিতামাতা ওই ছাত্রীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে।

অনশন ধর্মঘট পালন করা ১৩ ছাত্রীদের একজন শীতাল বলেন, ‘প্রায় প্রতিদিনই আমাদের ইভ টিজিংয়ের শিকার হতে হয়। আমাদের কি পড়া লেখা বন্ধ করে দেয়া উচিত? আমরা কি স্বপ্ন দেখা বন্ধ করে দেব? শুধু ধনী লোক এবং তাদের সন্তানেরা স্বপ্ন দেখতে পারবে? সরকার আমাদের রক্ষা করুক বা আমাদের গ্রামে একটি উচ্চ-মাধ্যমিক বিদ্যালয় খুলে দেক।’

সুজাতা নামে অপর এক ছাত্রী বলেন, ‘দুষ্কৃতিকারীরা প্রায়ই আমাদের শরীর স্পর্শ করতে চায়। তারা দেয়ালে আমাদের ফোন নম্বর ও বাজে মন্তব্য লিখে রাখে। তারা আমাদের সঙ্গে আরও অনেক খারাপ ব্যবহার করে যা ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়।’

অনশন করা এক ছাত্রীর মা বলেন, এই মেয়েদের দুর্দশা দেখা খুবই কষ্টের।

তিনি আরও বলেন, এই মেয়েরা যে ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছে তা আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। আমরা এই বিষয়ে পুলিশকে জানালে তারা আমাদের থানায় মামলা করতে বলে।

রোহতাশ কুমার নামে এক ভুক্তভোগীর বাবা বলেন, ‘বেশ কয়েক বছর ধরেই মেয়েরা এই ধরনের হয়রানির শিকার হয়ে আসছে। তবে এই প্রথম মেয়েরা মাঠে নেমে প্রতিবাদ জানালো। আমাদের গ্রামের পুরুষরাও তাদের সমর্থন দিচ্ছে।’

এই বিষয়ে পুলিশ এবং স্থানীয় কর্মকর্তারা যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। তবে তিনি জানান, পুলিশে এর আগেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কিন্তু সেগুলো বাস্তবায়িত হয়নি।- বিবিসি।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -