ধরা পড়লো মানুষ খেকো দম্পতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: রাশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমের ক্রাসনোদার শহরে এক মানুষ খেকো দম্পতির খোঁজ পাওয়া গেছে। ওই দম্পতি ৩০ জনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। ৩৫ বছর বয়সী দিমিত্রি বাকশেভ এবং তার স্ত্রী নাতালিয়া যে জায়গায় বসবাস করেন সে সামরিক ঘাঁটিতে কাঁটা-ছেড়া ও অঙ্গহীন একটি লাশ পাওয়া গেলে তাদের গ্রেফতার করা হয়। খবর বিবিসির

৩৫ বছর বয়সী দিমিত্রি বাকশিভ এবং তার স্ত্রী নাতালিয়া (৪২) পুলিশকে জানিয়েছেন, তারা ৩০ জনকে হত্যা করেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই দম্পতির বাসস্থানে তল্লাশি করে পাওয়া বেশ কিছু খাদ্যদ্রব্য ও মাংসের ডিএনএ পরীক্ষা করা হচ্ছে।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ ওই দম্পতির বাড়ি তল্লাশি করছে। সেখানে মানুষের শরীরের কিছু অঙ্গপ্রত্যঙ্গ পাওয়া গেছে, যার বেশ কিছুটা পাত্রে সংরক্ষণ করে রাখা।

ওই দম্পতি রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মালিকানাধীন মিলিটারি এভিয়েশন একাডেমিতে থাকেন। তারা সেখানে কর্মী হিসেবে কাজ করেন।

ঘটনা তদন্তে গঠিত সংস্থা জানিয়েছে, তল্লাশির সময় ওই বাড়ির রান্নাঘরে অজানা কিছু খাদ্যদ্রব্য ও মাংস পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত নমুনা মানুষের, নাকি অন্য কোনো প্রাণির, তা পরীক্ষার জন্য ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

রাশিয়ার গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই বাড়ির ভেতরে ও মোবাইল ফোনে পাওয়া ছবিগুলো দেখে মনে হচ্ছে, এসব হত্যাকাণ্ড প্রায় ২০ বছর আগের। এদের মধ্যে একটি ছবি ১৯৯৯ সালের ২৮ ডিসেম্বরে তোলা। যেখানে দেখা যাচ্ছে, একটি বড় থালায় বিভিন্ন রকমের ফলের সঙ্গে মানুষের একটি রক্তাক্ত কাটা মাথা পরিবেশন করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, হত্যাকাণ্ডের অভিযোগে গ্রেফতার ওই দম্পতিকে এখন কারাগারে রাখা হয়েছে। তারা কারাগারে থাকা অবস্থায় অন্যান্য পরীক্ষা চলবে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -