ফেসবুক ব্যবহার করছে ২০০ কোটি মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম : অর্থাৎ বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক চতুর্থাংশের বেশি মানুষ এখন এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সদস্য বা এর সঙ্গে যুক্ত আছে। ২০০৪ সালে যাত্রা শুরু করা ফেসবুকের ব্যবহারকারীর সংখ্যা এখন বিশ্বের যে কোনো দেশের জনসংখ্যার চেয়ে বেশি। আর বিশ্বের সাত মহাদেশের মধ্যে ছয়টির যে কোনোটির জনসংখ্যার চেয়েও এ সংখ্যা বেশি।

মঙ্গলবার এক ঘোষণায় এমনটিই জানিয়েছে ফেসবুক ইনকরপোরেটেড। ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, ‘এই পথচলায় আপনাদের সঙ্গে থাকতে পেরে আমি সম্মানিত বোধ করছি।’

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মোবাইল বা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ফেসবুক অথবা ম্যাসেঞ্জারে যুক্ত এমন অন্তত দুইশ কোটি নিবন্ধিত ব্যবহারকারী আছে, যারা মাসে অন্তত একবার এ মাধ্যম ব্যবহার করছে।

ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট নিওমি গ্লিট জানিয়েছেন, প্রতিদিন গড়ে ৮০ কোটি ব্যবহারকারী ফেসবুকে কোনো না কোনো বিষয়ে লাইক দিচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মালিকানা ফেসবুকের থাকলেও সেসব মাধ্যমের ব্যবহারকারীকে এই তালিকায় যুক্ত করা হয়নি বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুক প্রথম ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর সংখ্যায় পৌঁছে পাঁচ বছর আগে ২০১২ সালে। আর এ বছরের ৩১ মার্চ ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, তাদের গ্রাহকসংখ্যা ১৯৪ কোটির ঘর অতিক্রম করেছে।

অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মধ্যে তুলনামূলকভাবে ফেসবুকের কাছাকাছি অবস্থানে আছে চীনের উইচ্যাট। মে মাসের হিসাব অনুযায়ী উইচ্যাটের সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৯৩ কোটি ৮০ লাখ।

ইউরোপ-আমেরিকায় ফেসবুকের প্রতিদ্বন্দ্বী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারের সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা এপ্রিল পর্যন্ত ছিল মাত্র ৩২ কোটি ৮০ লাখ, আর স্ন্যাপচ্যাটের গ্রাহক মাত্র ১৬ কোটি ৬০ লাখ।

প্রসঙ্গত, ১৩ বছর আগে ২০০৪ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমিটরিতে নিজ কক্ষে কৌতুহলবশত ফেসবুক শুরু করেছিলেন মার্ক জাকারবার্গ ও তার সহযোগীরা। এখন এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারী ছড়িয়ে আছে বিশ্বের সব প্রান্তে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -