বিবাহিত জীবনে সুখী হতে মাসে অন্তত ১১ বার মিলন

লাইফস্টাইল ডেস্ক,বর্তমানকন্ঠ ডটকম: দাম্পত্য জীবনে যৌন মিলনের গুরুত্ব অপরিসীম। বিয়ের পর সম্পর্কটাকে আরও জোরদার করে তুলতে এ ব্যাপারে দু’জনের বোঝাপড়াটা ঠিকঠাক হওয়া খুব দরকার।

কিন্তু তার ‘ফ্রিকোয়েন্সি’ ঠিক কতটা হওয়া উচিত? সাইকোথেরাপিস্ট এম গ্যারি নিউম্যান জানাচ্ছেন, মাসে অন্তত ১১ বার যৌন মিলন খুশি রাখবে সদ্য বিবাহিতদের।

তাঁর গবেষণায় উঠে এসেছে সদ্য বিবাহিত দম্পতিরা সাধারণত মাসে ৩ থেকে ৪ বার মিলিত হন। কিন্তু, যদি অন্তত ১১ বার মিলিত হওয়া যায় এক মাসে, তবে সদ্য বিয়ে করা দম্পতিরা মানসিকভাবে অনেক বেশি সুস্থ থাকেন।

নিউম্যানের মতে, বিয়ের প্রথম দুই বছরে অন্তত দম্পতিদের একটু বেশি বার মিলিত হওয়া উচিত। তাতে সম্পর্কে অন্তরঙ্গতা ও উত্তেজনা বজায় থাকে। বেশ কিছু সদ্য বিবাহিত অথচ অসুখী দম্পতির ওপর সমীক্ষা চালিয়ে নিউম্যান দেখেছেন, কম বার যৌন মিলনের ফলে তাঁদের জীবনে মানসিক চাপ, আর্থিক চিন্তা, অনিদ্রার মতো সমস্যা অনেকটাই বেড়েছে।

মোট ৪০০ জন নারীকে সুখী ও অসুখী- এই দুই ভাগে ভাগ করে সমীক্ষা চালান নিউম্যান। তাঁর নতুন ‘রিকানেক্ট টু লাভ ইনটেনসিভ প্রোগ্রামে’ দিনভর দম্পতিদের কাউন্সেলিং করেন নিউম্যান। সেই প্রোগ্রামে স্বামী, স্ত্রী দু’জনকেই কোনো রকম ভার্চুয়াল সম্পর্ক বা অনলাইন বন্ধুত্বে যেতে বারণ করেন নিউম্যান।

কেন ভার্চুয়াল সম্পর্ক দাম্পত্যের ক্ষতি করতে পারে, তা নিজের ‘ইমোশনাল আইডেন্টিটি: হাউ টু অ্যাফেয়ার-প্রুফ ইয়োর ম্যারেজ অ্যান্ড টেন আদার সিক্রেট্স টু আ গ্রে রিলেশনশিপ’ বইয়ে সবিস্তারে ব্যাখ্যা করেছেন নিউম্যান।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It

 

This Category Latest news