মানসম্মত চিকিৎসাসেবা ও সঠিক তথ্য পেতে হাসপাতালের রেটিং হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: মানসম্মত চিকিৎসাসেবা ও সঠিক তথ্য পেতে হাসপাতালের রেটিং নির্ধারণে বিশেষ আইন প্রণয়ন করবে সরকার। এতে হাসপাতালগুলোর মধ্যে সেবার মান বাড়ানোর সুস্থ প্রতিযোগিতার সুযোগ সৃষ্টি হবে।
 
সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে হাসপাতালে সেবার মান বৃদ্ধিতে করণীয়  শীর্ষক  মতবিনিময় সভায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সংশ্লিষ্টদের এ আইনের খসড়া তৈরির নির্দেশ দেন।
 
স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, “মানুষ মানসম্মত চিকিৎসা নেয়ার জন্য হাসপাতালের শরণাপন্ন হয়। কিন্তু অনেকেই জানেন না কোন্ হাসপাতালের সেবা কেমন।  বিভিন্ন দেশের আইন ও রেটিং পর্যালোচনা ব্যবস্থা বিশ্লেষণ করে এ আইন করতে হবে।”
 
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, “দেশের সকল সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল সম্পর্কে সঠিক তথ্য সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে এরকম একটি আইন প্রণয়ন জরুরি হয়ে পড়েছে। চিকিৎসক, নার্স এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা, যন্ত্রপাতি ও শয্যার মানসহ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা পরিস্থিতিসহ সার্বিক খুঁটিনাটি বিচার বিশ্লেষণ করে হাসপাতালের রেটিং জনগণকে তাদের পছন্দ নির্বাচনে সাহায্য করবে।”
 
সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, “ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি বড় জেলায় সরকারি হাসপাতালে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কাজ বেসরকারি সংস্থাকে দেয়া হবে। প্রয়োজনে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের সাহায্য নিয়ে সরকারি হাসপাতালের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।”
 
সভায় অন্যদর মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান,  মহাসচিব অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

2017-08-08-05-11-19নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: শরীরের ওজন কমাতে কতজন কতকিছুই না করে থাকেন। শরীরের বাড়তি মেদ কমাতে কেউ কেউ খাওয়া-দাওয়াই কমিয়ে দিয়েছেন।মেনে চলছেন অনেক বিধি-নিষেধ। তারপরও কমছে না ওজন। তবে প্রতিদিনের খাবার সম্পর্কে একটু সচেতন থাকলেই শরীরে বাড়তি মেদ জমবে না। দ্রুত শরীরের ওজন কমাতে ফলের বিকল্প নেই। নিচে ওজন কমাতে সহায়ক...
     
 
FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -