সিলেটে ভিটামিন ‘এ’ খাবে সাড়ে ৪ লাখ শিশু

সিলেট,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইনের প্রথম রাউন্ডে আগামী শনিবার (৫ আগস্ট) সিলেটের প্রায় সাড়ে ৪ লাখ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এ দিন সারা দেশে ন্যায় সিলেটের ১২ উপজেলার স্থায়ী-অস্থায়ী মিলিয়ে ২৫শ’৬৩ কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা এ কার্যক্রম চলবে।

বুধবার (২ আগস্ট) সিলেটের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ে সিভিল সার্জন ডা. হিমাংশু লাল রায় এসব তথ্য জানান। দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে- “ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ান, শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান”।

তিনি বলেন, জেলার ১২ উপজেলায় ৪ লাখ ৪৪ হাজার ৯শ’৬৯ শিশুকে ভিটামিন-এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এদের মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাসের শিশুর সংখ্যা ৪৬ হাজার ৭শ’৭২ জন শিশুকে একটি করে নীল রঙের ও ১২ থেকে ৫৯ মাসের ৩ লাখ ৯৮ হাজার ৩শ’২২ জন শিশুকে লাল রঙের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘জেলার ১২ উপজেলায় অস্থায়ী টিকাকেন্দ্র রয়েছে ২৪১৬টি, স্থায়ী টিকাকেন্দ্র ১২টি, অতিরিক্ত টিকাকেন্দ্র ৯৯টি, ও ভ্রাম্যমাণ টিকাকেন্দ্র রয়েছে ৩৬টি। টিকাদানে প্রতি কেন্দ্রে ৩ জন করে ৫ হাজার ১২৬ জন সেচ্ছাসেবী কাজ করবেন।’ এছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের ১১শ’২৫ জন কর্মী ক্যাম্পেইন কাজে নিয়োজিত থাকবেন। তাছাড়া ক্যাম্পেইন করার লক্ষ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন এ ক্যাপসুল সরবরাহ রয়েছে বলে মতবিনিময় সভায় জানানো হয়।

সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. আহমদ সিরাজুম মুনীরের সঞ্চালনায় মতবিনিময়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট সদর উপজেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নুরে আলম শামীম, সিভিল সার্জন অফিসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা গৌছ আহমদ।

উল্লেখ্য, যদি কোন শিশু গত ৪মাসের মধ্যে ভিটামিন ‘এ‘ ক্যাপসুল খেয়ে থাকে তাহলে সেই শিশুকে আর ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। এছাড়া, কান্নারত অবস্থায় বা জোর করে শিশুকে খাওয়ানো যাবে না। কোন শিশুকে আস্ত বা গোটা খাওয়ানো যাবে না। ক্যাপসুলের মুখ কাঁচি দিয়ে কেটে ক্যাপসুলের ভিতরের তরল টুকু খাওয়াতে হবে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -