‘জঙ্গিরা দাওয়াতের দিকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবিরা বর্তমানে দাওয়াতের দিকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। দাওয়াতি কমিটির মাধ্যমে এই কার্যক্রম চালাচ্ছে তারা। শনিবার (১০ জুন) নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে গ্রেফতারকৃত নব্য জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের নেতা ইমরান আহমেদ ও তার এক সহযোগীর কাছ থেকে এসব তথ্য পাওয়া যায় বলে জানিছেন র‌্যাব।

এবিষয়ে রবিবার (১১ জুন) রাজধানীতে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানান বাহিনীর গণমাধ্যম শাখার প্রধান মুফতি মাহমুদ খান।

মুফতি মাহমুদ খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাতে জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের শুরা সদস্য ও অর্থ যোগানদাতা এবং ঢাকা মহানগর পশ্চিমের দাওয়াতি আমির ইমরান আহমেদ ও তার সহযোগী শামীম মিয়াকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১ এর একটি দল।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইমরানের দেয়া তথ্যের উদ্বৃতি দিয়ে মুফতি মাহমুদ বলেন, ‘জেএমবিরা বর্তমানে দাওয়াতের দিকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। এ কারণে তারা কিছুদিন আগে বগুড়ার সোনাতলা নামক স্থানে বৈঠক করেছে। আর সে বৈঠকে দাওয়াতি কার্যক্রমের জন্য ১০ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর সাজিদ দাওয়াতি সদস্য এবং মূল আমিরের মধ্যস্ততাকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আর মূল আমির সব সময় পর্দার আড়ালেই থেকে সমন্বয়কারীর মাধ্যমে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে বর্তমানে সাজিদ আত্মগোপনে রয়েছে।’

তাদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র ছাড়াও একটি পুস্তিকা পাওয়া যায় যেটিতে লেখা ছিল ‘জান্নাত ও আখেরাতের পাসপোর্ট’। এই পাসপোর্টের নিচে লেখক হিসেবে আকরামুল্লা সাঈদের নাম লেখা আছে। তবে এই পাসপোর্টের ভেতরে কী লেখা আছে, সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি।

তিনি আরও জানান, ‘ইমরান তাদেরকে জানিয়েছেন, তিনি একটি টেক্সটাইল কারখানার মালিক। ২০১২ সালে এক বন্ধুর মাধ্যমে তিনি জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েন। সে তার অফিস, কারখানা ভবন এবং বাসা এ তিন জায়গাতেই জঙ্গিবাদের সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন ধরনের বই পুস্তক ও অনেক জিনিসপত্র রাখতেন। ইরমান জঙ্গিদের আর্থিকভাবে সহযোগিতা করার পাশাপাশি অনেক জঙ্গিদের পাসপোর্ট তৈরি করে দিতেন। আবদুল হাকিম নামে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার এক ‘জঙ্গি’র জামিন করানোর জন্য তার স্ত্রীকে ইমরান দুই লাখ টাকা দিয়েছেন।’

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -