ইসিকে গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে: নাগরিক সমাজ

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে চলমান সংলাপে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলেছেন, ‘ইসিকে গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে। তারা যে দৃঢ় এবং স্বাধীন কমিশন এটি জনগণকে বুঝাতে হবে। এ বিষয়টি দৃশ্যমান ও প্রতীয়মান হতে হবে।’

একই সঙ্গে ইসির উদ্দেশ্যে তারা বলেছেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু করতে বেশ কিছু আইনি কাঠামোয় দুর্বলতা আছে, যেগুলো পরিশোধন করতে হবে। পাশাপামি অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে নতুন আইন করতে হবে।’

সোমবার (৩১ জুলাই) সংলাপের মধ্যাহ্ন বিরতির সময় বেরিয়ে আসার পথে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন সংলাপে অংশ নেয়া গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সোমবার (৩১ জুলাই) সকাল ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের সম্মেলন কক্ষে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপে বসে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সংলাপে অংশ নিতে সুশীল সমাজের ৫৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও প্রায় অর্ধেক বিশিষ্টজন সংলাপে যোগ দেয়নি।

আলোচনার শুরুতে সভাপতির স্বাগত বক্তব্য দেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা। চার নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ আলোচনায় উপস্থিত রয়েছেন। সঞ্চালনা করছেন ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

এদিকে সংলাপ চলাকালে সাংবাদিকদের ছবি তোলার অনুমতি দেয়া হলেও মতবিনিময় সভায় কোনও সাংবাদিককে থাকতে দেয়া হয়নি।

সংলাপে নাগরিক সমাজের আমন্ত্রিত প্রতিনিধিদের মধ্যে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, এম হাফিজ উদ্দিন খান, সাবেক সচিব এ এইচ এম কাশেম, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তারেক শামসুর রহমান, সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ সংলাপে উপস্থিত আছেন।

এছাড়া সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, সাবেক রাষ্ট্রদূত এ এফ গোলাম হোসেন, সাবেক সচিব রকিব উদ্দিন মণ্ডল, অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান, প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান, সিপিডির সম্মানিত ফেলো দ্রেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, অধ্যাপক এমএম আকাশ, অধ্যাপক অজয় রায়, অধিকারকর্মী খুশী কবির, সাইফুল হক, সঞ্জীব দ্রং, ফিলীপ গায়েন, ব্রতীর নির্বাহী শারমিন মুর্শিদ, অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, কলাম লেখক মহিউদ্দিন আহমদ, অধ্যাপক মাহবুবা নাসরিন, কবি লুবানা হাসান আলোচনায় অংশ নিচ্ছেন।

পরে এসে সংলাপে যোগ দেন সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান সা’দত হুসাইন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান, অধ্যাপক আসিফ নজরুল ও অধ্যাপক তাসনিম সিদ্দিকী।
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির আগের ৯০ দিনের মধ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করতে গত ১৬ জুলাই দেড় বছরের কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ করে কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -