‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে নির্বাচন যেন ভণ্ডুল না হয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তফসিল ঘোষণার আগে সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের সুপারিশ করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি)। সেই সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সংসদ নির্বাচনের সূচি যাতে ভণ্ডুল না হয় সেজন্যে সরকারের কাছে সুপারিশ করতে পরামর্শ দিয়েছে দলটি।

রবিবার (৮অক্টোবর) জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রবের নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপ করে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনাররা ও ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিবসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

রাজধানীর আঁগারগাওয়ে নির্বাচন ভবনে দুই ঘণ্টার বেশি সময় সংলাপ করে পরে সাংবাদিকদের আ স ম রব বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সংলাপে ইসির কাছে ১৪ দফা প্রস্তাব তুলে ধরা হয়েছে। সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারলে রাষ্ট্র বিপর্যয়ের মুখে পড়বে। এমনিতে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আমরা সংকটে পড়ে গেছি। ভোটারবিহীন নির্বাচন সে সংকটকে আরও উসকে দেবে।’

লিখিত প্রস্তাবে বলা হয়, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে যাতে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানের সূচি ভণ্ডুল না হতে পারে-সেজন্য একদিকে সমস্যার স্থায়ী সমাধান ও অন্যদিকে উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার স্বার্থে উপ আঞ্চলিক জোট গঠনের কুটনীতি জোরদার করতে হবে।’

এর জন্য ইসি সরকারের কাছে সুপারিশ করতে পারে বলে উল্লেখ করেন জেএসডি সভাপতি। সংলাপে জেএসডির লিখিত প্রস্তাব দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন উপস্থাপন করেন।

জেএসডি’র অন্য দাবিগুলো হচ্ছে-ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ সেনা মোতায়েন, তফসিল ঘোষণার আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে, ইসির স্বাধীন ভূমিকা নিশ্চিত, প্রবাসীদের ভোটাধিকার, না ভোটের বিধান চালু, তিন মাস আগে মামলা নিষ্পত্তি, সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরি, সব ভোটারদের এনআইডি কার্ড সরবরাহ, দলের অঙ্গ সংগঠন না থাকার বিধান কার্যকর, সব প্রার্থীকে এক মঞ্চে প্রচারণার ব্যবস্থা করতে হবে।’

ইসির ধারাবাহিক সংলাপে অাজ বিকেলে জাসদ অংশ নেবে। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে অংশীজনদের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছে ইসি। এরই ধারাবাহিকতায় এই বৈঠক হয়। গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধির সঙ্গে মতবিনিময় করেছে ইসি। ২৪ আগস্ট থেকে দলগুলোর সঙ্গে মতবিনিময় শুরু হয়েছে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -