এ বাজেট প্রযুক্তিবান্ধব: বিসিএস

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: নতুন অর্থবছরে সরকার ঘোষিত বাজেটকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবান্ধব বলে মনে করছেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি আলী আশফাক ও মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকারসহ বিসিএস নেতৃবৃন্দ।

রবিবার (০৪ জুন) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাজেট নিয়ে সন্তুষ্ট জ্ঞাপন করে বিসিএস সভাপতি আলী আশফাক বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আইসিটি বান্ধব বাজেট দেশের উন্নতিকে ত্বরান্বিত করবে। আইসিটি খাতে স্থানীয় সংযোজন ও উৎপাদনকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে যন্ত্রাংশ ও কাঁচামালের উপর কর ও শুল্ক ছাড় দেয়া হয়েছে। এতে করে দেশে কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাব ও মোবাইল ফোন সংযোজন এবং উৎপাদন শিল্পকারখানা গড়ে উঠবে। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাবে। কর্মসংস্থান বৃদ্ধি পাবে এবং আমদানি হ্রাস পাওয়ার ফলে বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে। প্রবৃদ্ধির হার দ্রুততার সাথে দুই অংকের কোঠায় পৌঁছানোর দিকে ধাবিত হবে এবং সংযোজিত ও উৎপাদিত আইসিটি পণ্যসমূহের মূল্যহ্রাস পাবে বলে আশা প্রকাশ করা যাচ্ছে।’

তিনি আরও জানান, ‘সরকারের সাথে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতিসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন একযোগে কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে ১৯৯৬ সন হতে আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অধিকাংশ পণ্যের আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক ও কর রেয়াতি সুবিধা দিয়ে আসছে সরকার। ফলে এ প্রযুক্তি দেশে ব্যাপকভাবে প্রসারলাভ করেছে। এ বছরের বাজেটেও লক্ষ্য করা যাচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিখাতের অধিকাংশ পণ্যের উল্লিখিত রেয়াতি সুবিধা বহাল রাখা হয়েছে। তাই প্রচুর সম্ভাবনাময় আইসিটি খাত সরকার বিঘোষিত রূপকল্প ২০২১ এবং ২০৪১ বাস্তবায়নে বিশেষ অবদান রাখবে বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।’

বিসিএস মহাসচিব ইঞ্জি. সুব্রত সরকার জানান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নের জন্য আইসিটি বিভাগের সার্বিক বরাদ্দ বর্তমান অর্থবছরের (২০১৬-২০১৭) চেয়ে ২,১৫৫ কোটি টাকা বাড়িয়ে আগামী বছরের (২০১৭-২০১৮) জন্য ৩,৯৭৪ কোটি টাকায় উপনীত করা হয়েছে। বিপুল অংকের এই অর্থ সময়মত যথাযতভাবে ব্যবহার করা গেলে আইসিটি খাতে বিপ্লব সাধিত হবে।

তিনি আরও জানান, কম্পিউটার, কম্পিউটার সংশ্লিষ্ট অন্যান্য যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সংশ্লিষ্ট অন্যান্য যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ, অপারেটিং সিস্টেম ও ডেভেলপমেন্ট টুল, ম্যাগনেটিক মিডিয়া সফটওয়্যারসহ আইসিটি খাতের অধিকাংশ পণ্যের আমদানি, সরবরাহ (খুচরা বিক্রয়সহ) পর্যায় সমূদয় মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ও সমুদয় সম্পূরক শুল্ক (যদি থাকে), তা হতে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিগত এক বছরে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সকলের সহায়তায় সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে প্রাক বাজেট সম্পর্কিত আলোচনায় শুল্ক ও কর ছাড় দেয়ার জন্য বরাবরই প্রস্তাব দিয়ে এসেছে। এতে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের জন্য ঘোষিত বাজেটে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি’র অধিকাংশ সুপারিশের প্রতিফলন ঘটায় সমিতি’র পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করা হয়।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -