লাইলীর শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: রাজধানীর বনশ্রীতে নিহত গৃহকর্মী লাইলী বেগমের (২৫) ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্তে তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানান চিকিৎসকরা।

শনিবার (৫ আগস্ট) বিকালে ময়নাতদন্ত শেষে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘নিহত লাইলী বেগমের মাথায় আঘাতের চিহ্ন ও গলায় দাগ পাওয়া গেছে। এছাড়া শরীরের আরও কিছু অংশেও নির্যাতনের আলামত পাওয়া গেছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।’

এছাড়া আরও পরীক্ষার জন্য নিহতের দেহ থেকে টিস্যু সংগ্রহ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।  উল্লেখ্য, শুক্রবার (৪ আগস্ট) বনশ্রীর ‘ডি’ ব্লকের ৪ নম্বর রোডের ১৪ নম্বর বাসার নিচ তলার বাসা থেকে লাইলী বেগমের লাশ উদ্ধার করা হয়। লাইলীর গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি থানার কাশিপুর গ্রামে। তিনি তার স্বামী নজরুল ইসলামের সঙ্গে মেরাদিয়া হিন্দুপাড়ায় থাকতেন এবং বিভিন্ন বাসা বাড়িতে গৃহকমীর কাজ করতেন।

লাইলীর স্বজন আফরোজা জানান, লাইলী ওই বাসায় প্রায় এক বছর ধরে কাজ করছিল। কাজের সুবাদে তার কিছু টাকা বকেয়া ছিল। শুক্রবার সকালে সেই পাওনা টাকা চাইতে গেলে বাসার মালিক মইনুদ্দিন তাকে গলাটিপে হত্যা করে ফ্যানের সঙ্গে ঝুঁলিয়ে রাখে। পরে কাউকে কিছু না জানিয়ে বাসার মালিক লাইলীকে হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করে।

তার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী। এ সময় ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও গাড়িতে আগুন দেয় তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। এতে পুলিশের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় দুইটি মামলা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -