বিএনপি কুঁজো দলে পরিণত হয়েছে: নৌ মন্ত্রী

বাগেরহাট,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: বিএনপি একটি কুঁজো দলে পরিণত হয়েছে। তারা আন্দোলন আন্দোলন বলছে অথচ আন্দোলন করার সাধ্য তাদের নেই বলে মন্তব্য করেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

শনিবার (০৫ আগস্ট) দুপুর ১২ টার দিকে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্মচারী সংঘের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের জন্য অনেকে জোট গঠন করছেন, এটাই গণতান্ত্রিক ধারা। বিএনপি বলতে চায় তারা বৃহৎ দল। বৃহৎ দল হলে নির্বাচনে আসেন না কেন? তারা কখনও বলেন, সহায়ক সরকার, কখনও বলেন শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাব না। আবার নির্বাচনের প্রক্রিয়া চালান। এদিকে কেনডিডেটও ঠিক করে চলেছেন। তারা কোনটা করবেন তাদের ব্যাপার।’

মোংলা বন্দর সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘এই মোংলা বন্দর আরও অনেক উন্নত হবে। পদ্মা সেতু সম্পন্ন হলে এই বন্দর হবে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চের মধ্যে একটি শ্রেষ্ঠ বন্দর। নেপাল, ভুটান ও ভারত এ বন্দর ব্যবহার করবে। সেই ধরণের ব্যবস্থা আমরা গ্রহণ করেছি।’

এরপর দুপুর ১টায় বন্দর কর্তৃপক্ষের সম্মেলন কক্ষে নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় মোংলা বন্দর উপদেষ্টা কমিটির ১৪তম বৈঠক। বৈঠকে বিশেষ করে বন্দর ব্যবহারকারীরা কাস্টমসের নানা অনিয়ম ও হয়রানীর বিষয়টি তুলে ধরলে মন্ত্রী ব্যবসায়ীদের সন্তষ্ট রেখে কাস্টমস  কর্তৃপক্ষকে সঠিকভাবে সেবা প্রদাণ ও খুলনা থেকে মোংলা কাস্টমস হাউসকে দ্রুত মোংলায় স্থানান্তরের নির্দেশ দেন।

এছাড়া বন্দরের চলমান নানা ধরণের উন্নয়ন প্রকল্প ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়েও ব্যাপক আলোচনা হয়। বন্দর উপদেষ্টা কমিটির এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় (বাগেরহাট-০৩, মোংলা-রামপাল) সংসদ সদস্য আলহাজ তালুকদার আব্দুল খালেক, বাগেরহাট-০২ আসনের সংসদ সদস্য মীর শওকত আলী বাদশা, বাগেরহাট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ডা. মোজাম্মেল হোসেন, সাবেক হুইপ ও খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুন অর রশিদ, নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর একেএম ফারুক হাসান ও মোংলা কাস্টমস হাউসের যুগ্ম কমিশনার এনামুল হকসহ বন্দর উপদেষ্টা কমিটির অন্যান্য সদস্যরা।

পরে বিকাল ৪টায় মন্ত্রী দিগরাজে মোংলা বন্দর ও পৌর কর্তৃপক্ষের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত মোংলা বন্দর পৌর ট্রাক টার্মিনালের উদ্বোধন করেন। এ সময় পৌর মেয়র জুলফিকার আলীসহ পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -