ব্রিটিশ পার্লামেন্ট নির্বাচনে বাংলাদেশি ‘তিনকন্যা’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম : লন্ডন ও ম্যানচেস্টারে সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে কড়া নিরাপত্তার মাঝে শেষদিনে ভোটের প্রচারণা চলছে ব্রিটেনে। রাত পোহালেই ভোট। শেষ মুহূর্তের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত এখন প্রায় সব প্রার্থীরা। তবে দেশের বাইরে বাংলাদেশি তিনকন্যা যুক্তরাজ্যের এই পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিশ্ব গণমাধ্যমের নজর কেড়েছেন। ইতোপূর্বে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় এই তিনকন্যা ভোটের মাঠেও বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।
 
৮ জুন অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মোট ১৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ রিজওয়ানা সিদ্দিক, রুশনারা আলী এবং রূপা হক জনগণের সবচেয়ে বেশি দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। তারা তিনজনই বিরোধী লেবার পার্টির প্রার্থী।

২০১৫ সালের নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মোট ১১ জন প্রার্থী ছিল। তাদের মধ্যে বাংলাদেশের তিনকন্যা রেকর্ড বিজয় অর্জন করেন। ওই বিজয়ই তাদের তিনজনকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার ঘটনার (ব্রেক্সিট) পরবর্তীতে কঠিন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনুপ্রাণিত করেছে।

যুক্তরাজ্যের আগামীকালের নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ১৪ জন প্রার্থীর মধ্যে তিনকন্যা সহ ৮ জন লেবার পার্টি থেকে, একজন লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টি থেকে এবং ৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

কিন্তু অন্য বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের তুলনায় তিনকন্যা- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগনি টিউলিপ রিজওয়ানা সিদ্দিক, রুশনারা আলী এবং ডা. রূপা হক অনেকটা সুবিধাজনক অবস্থায় আছেন। কেননা তারা তিনজনই ইতোপূর্বে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তারা তিনজন যে আসনসমূহ থেকে মাত্র দুবছর আগে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন, সেই আসন থেকেই তারা আবার নির্বাচন করছেন।

নির্বাচনে টিউলিপ রিজওয়ানা সিদ্দিক তার লন্ডনের ‘হ্যাম্পসটেড এ্যান্ড কিলবুর্ন’ সংসদীয় আসনটি রক্ষার জন্য লড়ছেন। টিউলিপের প্রতিদ্বন্দ্বিরা হলেন- লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টির ক্রিস্টি এ্যালান, কনজারভেটিভ পার্টির ক্লেয়ার লুইস লেল্যান্ড, গ্রিন পার্টির জন ম্যানসক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হুফ ইস্টারব্রুক ও রেইনবো জর্জ ওয়েইস।

রুশনারা আলী বাঙালি অধ্যুষিত ‘বেন্থাল গ্রিন এ্যান্ড বো’ আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার আসনে অন্য প্রার্থীরা হলেন- কনজারভেটিভ পার্টির চার্লোট চিরিকো, লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টির উইলিয়াম ডায়ার, গ্রিন পার্টির এ্যালিস্টার পোলসন, ইউকেআইআইপি’র ইয়ান ডি উলভেরন এবং স্বতন্ত্র আজমল মনসুর।

রূপা হক আগামীকালের নির্বাচনে তার ‘ইয়ালিং সেন্ট্রাল এ্যান্ড এ্যাক্টন’ আসন রক্ষার জন্য লড়ছেন। তার দুই প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছেন- কনজারভেটিভ পার্টির জয় মরিসে এবং লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টির জন বল।

এর আগে ২০১৫ সালের ৭ মে তারিখে যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ৬৫০ আসনের পার্লামেন্টে ৩৩১ আসন পেয়ে কনজারভেটিভ পার্টি জয়লাভ করে। ওই নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ১১ জন প্রার্থীর মধ্যে লেবার পার্টি থেকে সর্বাধিক ৭ জন, লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টি থেকে ৩ জন এবং কনজারভেটিভ পার্টি থেকে ১ জন মনোনয়ন পান। এর মধ্যে লেবার পার্টি মনোনীত ‘তিনকন্যা’ রুশনারা আলী, টিউলিপ রিজওয়ানা সিদ্দিক ও রূপা হক জয়লাভ করেন।







FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -