‘সংসদ ভেঙে দেয়ার প্রস্তাব দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে সংসদ ভেঙে দিতে সরকারের কাছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পক্ষ থেকে প্রস্তাব দেয়ার সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (কাঁঠাল প্রতীক)।

একই সঙ্গে ইসির নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিনিধি নিয়ে সর্বদলীয় সরকার গঠন করে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার দাবি জানানো হয়েছে।রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইসির সঙ্গে সংলাপে এসব দাবি জানায় দলটি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা সংলাপে সভাপতিত্ব করেন। বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যন এম এ মুকিনের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল বৈঠকে অংশ নেন।

দলটির নেতারা জানান, সংসদ নির্বাচনের ৩ মাস পূর্বে থেকে এবং নির্বাচনের পরবর্তী কমপক্ষে একমাস পর্যন্ত ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। পাশাপাশি তফসিল ঘোষণার আগেই চলমান দশম জাতীয় সংসদ ভেঙে সহায়ক সরকার দিতে হবে।

সংলাপে অংশ নিয়ে মোট ১২টি প্রস্তাব দেয় বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি। এগুলো হচ্ছে- নির্বাচনের কমপক্ষে ৬ মাস আগে হালনাগাদ ভোটার তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশের ব্যবস্থা করা। নির্বাচনের ৩ মাস আগ থেকে এবং নির্বাচনের পরে কমপক্ষে ১ মাস মেজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনের ব্যবস্থা নেয়া।

এছাড়া জাতীয় নির্বাচন একদিনেই না করে প্রতিটি বিভাগে আলাদা আলাদা দিনে নির্বাচন করে একদিন ফলাফল প্রকাশ করা। রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত কর্মকর্তাদের নির্বাচনের যে কোনও কাজ থেকে দূরে রাখা। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা বসানো। প্রবাসীদের ভোটার করে ভোট দানের ব্যবস্থা। প্রতিটি সংসদীয় আসনে সব ধরনের মিছিল সমাবেশ নিষিদ্ধ করে ইসির খরচে ও উদ্যোগে সব প্রার্থীদের একই মঞ্চে পর্যাপ্ত পরিমাণ পরিচিতি সভা করা। দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জন্য আনুপাতিকহারে সংসদে আসন সংরক্ষিত রাখা। ব্যালটে না ভোট এর বিধান রাখা এবং সবার জন্য সমান সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘোষিত রোডম্যাপ অনুযায়ী এ সংলাপ করছে ইসি। সুশীল সমাজ, গণমাধ্যমের পর ধারাবাহিকভাবে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ করছে নির্বাচন কমিশন।

গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজ, ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপের  পর ২৪ আগস্ট থেকে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে মত বিনিময় শুরু হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। গত ১৬ জুলাই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে  রোডম্যাপ ঘোষণা করে ইসি। রোডম্যাপ অনুযায়ী সংলাপ হচ্ছে।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -