১৮ প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য" একটি শিক্ষনীয় ঘটনা

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: "১৮ প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য"..::: একটি শিক্ষনীয় ঘটনা :::.. একছেলে মাদ্রাসায় পড়াশুনা করত ।ছেলেটা মাদ্রাসায় যাওয়ার সময়একটি মেয়ে সব সময় তাঁরদিকে তাকিয়ে থাকে, তাঁরসাথে কথা বলতে চায় ! কিন্তু সেইছেলেটি আবার আমার আপনার মতক্যারেক্টার ঢিলা ছিল না !সে কোনো বেগানা নারীরদিকে তাকাতে চায়না, চায়না কথা বলতে !হয়তো এরকম এভয়েড এবং মেয়েদেরদিকে তাকানোর অনীহা দেখে সেইমেয়েটি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে !! একদিনমেয়েটা ছেলেটিকে তারখালি বাড়ীতে ডাকলো ! কিন্তুছেলেটি রাজি হলনা । কিছুদিন পরমেয়েটি একটা কৌশল খাটাল ,মেয়েটা তাদের একদাসীকে শিখিয়ে দিলে যে ,ছেলেটাকে বলবে যে , এবাড়ীতে একটা ছোট বাচ্চা আছে ,বাচ্চাটা খুব কান্না-কাঁটি করতেছে ,আপনি একটু এসে বাচ্চাটাকে সূরা - কালামপাঠ করে ঝাড়-ফুঁক দিয়ে যান , দাসীটা এমিথ্যা কথা বলে ঐ মাদরাসারছেলেটাকে বাড়ির ভেতর নিয়ে গেলো !তারপর সে দুষ্ট মেয়েটা ছেলেটাকে নির্জনএকটা রুমে বন্দি করল , ছেলেটারকাছে নিজেকে সঁপে দিতে চাইলো !!(আমি আপনি এই জায়গায় হলে হয়তো বলেইবসতাম আই লাভ ইউ !) কিন্তু সেইছেলেটি চাইলো না কোনো অবৈধ কিছুকরতে ! ছেলেটি পড়ে গেলো মহা বিপদে,বুদ্ধি করে বললো, আমার একটুটয়লেটে যেতে হবে! মেয়েটি বলল যাও,তবে দ্রুত ফিরে আসবে । ছেলেটি বাধ্যহয়েই টয়লেটথেকে নোংরা পানি দিয়ে তার পুরো শরীরমেখে নিল,, যাতে তার শরীরথেকেবিশ্রি গন্ধ বের হয়......ছেলেটি টয়লেট থেকে বের হবার পর,,মেয়েটি তার গায়ের দুর্গন্ধেরকারনে তাকে তাড়িয়ে দিলো! আরছেলেটি খুশী মনে বের হয়ে গোসলকরে মাদ্রাসায় গিয়ে ক্লাসে প্রবেশকরলো !! ওস্তাদ ক্লাস চলাকালীনসময়ে বললেন,, তোমাদেরমধ্যে কে আজকে এমন সুগন্ধলাগিয়ে এসেছো যে পুরো ক্লাস সুগন্ধময়হয়ে আছে! ছেলেটা ভয় পেয়ে গেল ,মনে মনে ভাবল হয়ত তার গায়ে কোথাওময়লা লেগে আছে অথবা ভালকরে ধোয়া হয়নি , সেখান থেকে মনে হয়দুর্গন্ধ বের হচ্ছে ! সে মনে করল , ক্লাসেরমধ্যে ওস্তাদ তার গায়ের দুর্গন্ধকে উপহাসকরে সুগন্ধ বলছে নাতো ? ছেলেটা লজ্জায়মাথা নিচু করে বেঞ্চে বসে রইল!এদিকে কোন ছাত্র জবাব না দেওয়ায় ওস্তাদঅবাক হলেন , এবং পরীক্ষা করার করার জন্যএকজন একজন করে উঠে আসতে বললেন ,আশ্চর্যের বিষয় কারো কাছেই এ সুগন্ধপাওয়া গেল না , অতঃপর ওস্তাদ দেখলেনএকটা ছেলে ক্লাসের সর্বশেষবেঞ্চে মাথা নিচু করে বসে আছে , ওস্তাদছেলেটাকে কাছে ডাকলেন ,ছেলেটা কাছে আসলো , ওস্তাদ খেয়ালকরলেন এই ছেলেটার কাছে থেকেই এতসুগন্ধ বের হচ্ছে ! ওস্তাদ ছেলেটাকে প্রশ্নকরলেন , তুমি ই এ সুগন্ধ
লাগিয়ে এসেছ ,
কিন্তুআমাদেরকে বলছনা কেন ? বলো এই সুগন্ধকোথায় পেয়েছ ? ছেলেটা তখনভয়ে কাঁদতে আরম্ভ করল ! ওস্তাদআরো বেশি অবাক হলেন এবছেলেটাকে
বললেন , তুমি কাঁদছ কেন ?
তখনছেলেটা সম্পূর্ণ ঘটনা ওস্তাদ কে বলে দিল ,
সব কিছু শুনে ওস্তাদ ও কেঁদে
ফেললেনএবং ছেলেটাকে বুকেরসাথে জড়িয়ে ধরে সকলছাত্রদেরকে বললেনঃ তোমরা যদি কেউএকজন জান্নাতী মানুষ দেখতে চাও
,তাহলে আমার এই ছাত্রটিকে
দেখ ! ... ...সুবহান-আল্লাহ্!!!!!!! ছেলেটি আর কেউনা,,তিনি হলেন ঈমাম গাজ্জালী (রহ.)।।।
আমরাকি এরকম হতে পারি!!!!!!!!!

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It