কী হচ্ছে এসব! সাংবাদিকদের কোহলি

স্পোর্টস ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: ম্যাচের জয় বলতে কোহলির হাতে আছে শুধুমাত্র টসটাই। টসে জিতলেই যে ম্যাচ জেতা হয় না সেটি হয়তো কোহলি নিজেও ঘুরেফিরে স্মরণ করছেন। প্রথম ইনিংসে এক ফখর জামানের সেঞ্চুরিতেই হাবুডুবু খাচ্ছিল ভারত। ইনিংস শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৩৮ রান।

তবে এদিন ভারতের অধিনায়ক হিসেবে বোধহয় কোহলির দিনটাই সবচেয়ে বেশি খারাপ কেটেছে। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কোহলি বোলারদের দিয়ে যেমন পাক ব্যাটসম্যানদের রুখে দিতে পারেননি একইভাবে ব্যাট হাতেও ছিলেন চরম ব্যর্থ। বলা যায় আমিরের পেসের কাছে একপ্রকার আত্মসমর্পণই করেছেন হালের সেরা ব্যাটসম্যান।  

ইনিংসের ৩ নম্বর বলে রোহিত আউট, দলীয় ৭ রানে আগের বলে স্লিপে লাইফ পেয়েও পরের বলেই পয়েন্টে ক্যাচ দিয়ে আমিরের দ্বিতীয় শিকার কোহলি। এর পর ৫৪ রানের মাথায় তৃতীয় উইকেটের পতন কি ভারতকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়নি? হ্যা, আমিরের বলে শেখর ধাওয়ান আউট হওয়ার পর সত্যি সত্যি ম্যাচটা পাকিদের দিকে চলে যায়।

তবে এমন নাস্তানাবুদ পরাজয় ভারতের জন্য বিশেষত অধিনায়ক কোহলির জন্য বিষম যাতনারই। আর সেই পরাজয় যদি হয় পাকিস্তানের কাছে তবে তো আত্মমর্যাদায়ও আঘাত লাগে। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণীতে এসে কোনও অজুহাত না দেখিয়ে সাবলীলভাবেই সব সামলে নেন কোহলি। কিন্তু তার ভেতরটা কি তখন পরাজয়ের তিক্ততায় জর্জরিত হয়ে উঠছিল না? হয়তো তা-ই।

ম্যাচ শেষে নাসির হোসাইনের সঙ্গে সহজ কণ্ঠে সব বলতে পারলেও সংবাদ সম্মেলনটা কিন্তু অতটা সহজ ছিল না কোহলির জন্য। সাংবাদিকদের একের পর এক প্রশ্নবাণে যেন জর্জরিত হচ্ছিলেন ভারত অধিনায়ক। হয় কথা কাটাকাটিও।

গোলটা লাগে পাকিস্তানি অপেনার ফখর জামানকে নিয়ে। ব্যক্তিগত ৩ রানেই বুমরার বলে ধোনির হাতে ক্যাচ দিয়েছিলেন ফখর। কিন্তু নো বল হওয়ায় শেষ পর্যন্ত জীবন পেয়ে করেন ১০৬ বলে ১১৪ রান। এই ইনিংসটিই কি ভারতকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দিয়েছে? একা ফখর জামানই কি দুদলের ব্যবধান রচনা করেছেন?

ফখরের সেই আউট, নো বল ও শেষে সেঞ্চুরি তুলে নেয়া নিয়ে কোহলিকে প্রশ্ন করেছিল সাংবাদিকরা। জবাবে সাংবাদিকদের পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দেন ভারত অধিনায়ক।

সাংবাদিক: ক্যাপটেন, টস জিতলেন, এরপর নো-বলে একটা উইকেট হাতছাড়া হলো। এই ম্যাচে মাঠে কোনও সুখকর মুহূর্ত কি ছিল আপনার জন্য?
কোহলি: কোনও কী? সুখকর মুহূর্ত?
সাংবাদিক: সুখকর মুহূর্ত। টস জিতলেন, এরপর নো-বলে একটা উইকেট। এই ম্যাচে মাঠে কোনো সুখকর মুহূর্ত কি ছিল আপনার জন্য?
কোহলি: এই ম্যাচে কোনো সুখকর মুহূর্ত? কার জন্য?
সাংবাদিক: আপনার।
কোহলি: নো-বল কীভাবে আমার জন্য কোনও সুখকর মুহূর্ত হতে পারে?
সাংবাদিক: কারণ, ওই বলে উইকেট পেলেন।
কোহলি: এটা কোনো প্রশ্ন হলো? কী হচ্ছে এসব!

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It
এই পাতার আরো খবর -