মেসির ৩০০ মিলিয়নও কিছুই না!

স্পোর্টস ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: কিছুদিন আগেও সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়ের তকমা ছিলো ম্যান ইউ উইঙ্গার পল পগবার। তারপরই ছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সে তকমা এবার ব্রাজিলিয়ান নেইমারের মুকুটে। মেসির ছায়া থেকে সরে গিয়ে পিএসজিতে ২২২ মিলিয়ন ইউরোর দাম এখন এই ব্রাজিলিয়ানের।

নেইমার তো বার্সা ছেড়ে চলে গেলেন। যদিও বার্সা কোনোভাবেই রাজি ছিলো না তাকে ছাড়তে। এবার বার্সেলোনা কি তাদের রাজা মেসিকে ধরে রাখতে পারবে? এ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন ফুটবল বিশ্লেষকরা। লিভারপুলের বস ইয়ুর্গেন ক্লপ তো বলেই দিয়েছেন নেইমারের দলবদলের পর ৩০০ মিলিয়নে মেসিকে কিনে নেওয়া এখন ‘খুবই সম্ভব’।

অবশ্য কিছুদিন আগেই মেসির সাথে চুক্তি নবায়ন করেছিলো কাতালান ক্লাবটি। মেসির এই নতুন চুক্তি বলছে, মেসির বাই-আউট ক্লজ দেখাবে ৩০০ মিলিয়ন। আগের চুক্তিতে বার্সার আপত্তি গ্রাহ্য না করেও মেসিকে কিনতে কোনো ক্লাবের খরচ হতো ২৫০ মিলিয়ন ইউরো, নতুন চুক্তিতে অঙ্কটা বেড়েছে আরও ৫০ মিলিয়ন। অর্থাৎ মেসির বাই-আউট ক্লজ ৩০০ মিলিয়ন।

এক ধরনের হুমকি আছে লিভারপুল বসের কথায়। তিনিও কি মেসিকে ভাগিয়ে নেয়ার ভাবনায় আছেন? ইয়ুর্গেন ক্লপ তার ভাষায় বলেছেন, ‘নেইমারের পেছনে ২২২ মিলিয়ন ব্যয় করা সম্ভব হলে মেসির জন্য ৩০০ মিলিয়ন কিছুই না!’

কিন্তু বার্সেলোনা মেসির জন্য এত টাকার বাই আউট ক্লজ ধরে রেখেছে কেন? উত্তর অবশ্য স্বাভাবিক। যাতে অন্য ক্লাবগুলো এত আকাশ ছোঁয়া দাম ধরতে বুক কাঁপে। কিন্তু নেইমারকে বার্সা থেকে ভাগিয়ে নেয়ার পর চিন্তার ভাঁজ বেশি হতেই পারে বার্সার। মেসিকে নিয়ে ৩০০ মিলিয়ন ইউরোর বাজি ধরতে পিছপা হবে না কেউ।

সম্প্রতি পাঁচ বছরের চুক্তিতে মেসিদের ছেড়ে পিএসজিতে সই করেছেন নেইমার। সেখানে ১০ নম্বর জার্সিতে দেখা যাবে ব্রাজিলের এই আইকনকে। নেইমারকে কিনতে ২২২ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছে পিএসজি। বার্সার ১০ নম্বর আর্জেন্টাইন আইকনকে কেউ নিতে চাইলে যে বিপুল পরিমান অর্থ খরচ হবে সেটি মানেন ক্লপ। তবে, তার কাছে এই বিপুল পরিমান অর্থ ব্যয়কে অসম্ভব বলে মনে হচ্ছে না।

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It