মঙ্গলবার, ০৯ জুলাই ২০২৪, ০৫:২৬ অপরাহ্ন

ঝালকাঠিতে জেএমবির দুই সদস্যকে যাবজ্জীবন

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৬৪ পাঠক
বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

খাইরুল ইসলাম,ঝালকাঠি:
ঝালকাঠিতে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট জেএমবির সিরিজ বোমা হামলার ঘটনার দীর্ঘ সাড়ে ১৪ বছর পর দুইজনকে যাবজ্জাীবন কারাদন্ড দিয়েছেন ঝালকাঠির একটি আদালত।

দ-প্রাপ্তরা হলেন ঝালকাঠির বিকনা গ্রামের মো. ইউনুস মল্লিক এর ছেলে মো. জিয়াউর রহমান এবং বৈদারাপুর গ্রামের মোশাররফ হোসেনের ছেলে ফরিদ হোসেন। একই সাথে বিস্ফোরক আইনের ৪ ধারায় তাদেরকে আরো দশ বছরের কারাদ-ের আদেশ দেয়া হয়েছে। বুধবার দুপুরে ঝালকাঠির বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিচারক শেখ মো. তোফায়েল হাসান আসামীদের উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরন এবং ঝালকাঠি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-২ আদলতের এর অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আসম মোস্তাফিজুর রহমান মনু জানান, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সকাল ১১টা ৩০ মিনিটে ঝালকাঠি জেলা শহরের পাঁচটি স্থানে পর পর পাঁচটি বোমার বিস্ফোরণে কেপে ওঠে ঝালকাঠি শহর। ঝালকাঠি জেলা জজ আদালত চত্বর, জেলা প্রশাসক কার্যালয়, আইনজীবী সমিতি, সদর উপজেলা পরিষদ চত্বর ও বিকনা টেম্পোস্ট্যান্ডে এ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ঝালকাঠি থানার তৎকালীন ওসি মো. সোহরাব আলী বাদী হয়ে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় আহত অবস্থায় আটক ফরিদ হোসেনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ২০০৬ সালের ২২ অক্টোবর গোয়েন্দা পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেন। জেএমবির সদস্য ঝালকাঠির বিকনা গ্রামের মো. জিয়াউর রহমান ও আহত অবস্থায় আটক রিকশা চালক ফরিদ হোসেনকে অভিযোগপত্রে আসামী করা হয়। মামলায় ১৩ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহগণ করে উপরোক্ত রায় ঘোষণা করা হয়। রাস্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আসম মোস্তাফিজুর রহমান মনু এবং আসামী পক্ষে ছিলেন এ্যাড. নাসির উদ্দিন কবীর।

প্রসঙ্গত, ১৭ আগস্ট বোমা হামলার ঘটনার আড়াই মাস পর ১৪ নভেম্বর জেএমবির আতœঘাতী বোমা হামলায় ঝালকাঠির দুই বিচারক সোহেল আহমেদ ও জগন্নাথ পাঁড়ে নিহত হন। এ মামলায় ঝালকাঠির আদালতেই জেএমবি প্রধান শায়খ আবদুর রহমানসহ ৭ শীর্ষ জঙ্গির ফাসির আদেশ হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই পাতার আওর সংবাদ