1. azadkalam884@gmail.com : A K Azad : A K Azad
  2. bartamankantho@gmail.com : বর্তমানকণ্ঠ ডটকম : বর্তমানকণ্ঠ ডটকম
  3. cmisagor@gmail.com : বর্তমানকণ্ঠ ডটকম : বর্তমানকণ্ঠ ডটকম
  4. hasantamim2020@gmail.com : হাসান তামিম : হাসান তামিম
  5. khandakarshahin@gmail.com : Khandaker Shahin : Khandaker Shahin
সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ১১:৪১ অপরাহ্ন
১০ বছরে বর্তমানকণ্ঠ-
১০ বছর পদার্পণ উপলক্ষে বর্তমানকণ্ঠ পরিবারের পক্ষ থেকে সবাইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা....

ফরিদগঞ্জে আগুনে পুড়ল সংখ্যালঘুর ঘর, রহস্য উদঘাটনে প্রশাসনের তদন্ত কমিটি ঘটন

এ কে আজাদ : চীফ রিপোর্টার
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১

সংখ্যালঘুর ঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৫ নং গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের গুপ্টি গ্রমে ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরিকে আহ্বায়ক করে ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে এই কমিটিকে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

আগুনে তার বসতঘর ও রান্নাঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে ঘরে কেউই না থাকায় হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী রামগঞ্জ উপজেলা থেকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আসলেও ততক্ষণে ভষ্মিভূত হয়ে যায় দুটি ঘর ।
খবর পেয়ে বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ ও পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারীসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধিরা।

প্রত্যক্ষদর্শী রাজীব কর্মকার, হরেকৃষ্ণ কর্মকার, খোকন পাটোয়ারীসহ আরো বেশ কয়েকজন জানান, রাত আড়াইটার দিকে ঘরে আগুন লাগার পর বাড়ির মহিলারা প্রথমে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার শুরু করে। এসময় আশেপাশের লোকজন দ্রæত আগুন নিভানোর জন্য ছুটে আসেন। কিন্তু তারা ব্যাপক চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পূর্বেই ঘর আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুন কে বা কারা লাগিয়েছে সে বিষয়ে কিন্তু স্থানীয় কেউই নিশ্চিত করতে পারেনি।

বসত ঘরের মালিক বীরেশ্বর কর্মকার জানান, আমি শারীরিক অসুস্থতার কারণে বাড়িতে থাকতে পারিনা। চাঁদপুরের নতুন বাজার এলাকায় কামারের কাজ করে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকি। মাসে দু’একবার বাড়িতে আসি। রাত চারটায় আমি এই অগ্নিকান্ডের খবর পাই। খবর পেয়ে দ্রæত বাড়িতে চলে আসি। বাড়িতে আমার প্রয়োাজনীয় আসবাবপত্র এবং গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাগজপত্র ছিল যা একেবারে আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

তিনি আরো বলেন, আমার সাথে এলাকার কারো কোন ধরনের বিরোধ বা মামলা নেই। কে এই ধরনের কাজ করতে পারে তার কোন ধারনা আমার নেই।

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ফরিদগঞ্জ উপজেলা সভাপতি হিতেশ শর্মা জানান, যেহেতু বাড়িতে কেউ ছিল না। তাই সুযোগ সন্ধানীরা যে কেউ এই ঘটনাটি ঘটাতে পারে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে প্রশাসনকে খতিয়ে দেখার আহ্বান জানান তিনি।
পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, বসতবাটিতে প্রায় ১০ বছর যাবত কেউ থাকেনা। এর পাশে রিমোট এলাকায় একটি মন্দির রয়েছে। যদি নাশকতার উদ্দেশ্য থাকত তাহলে মন্দিরে ভাঙচুর করার সম্ভাবনা ছিল। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শটসার্কিট থেকে বা অন্য কোনোভাবে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। আমরা ফায়ার সার্ভিসের সাথে কথা বলবো। তদন্ত সাপেক্ষে মূল ঘটনার রহস্য বেরিয়ে আসবে।

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দিবেন। তদন্তে বেরিয়ে আসবে মূল রহস্য ।

তিনি আরো বলেন, আমরা জানতে পেরেছি বাড়িতে কেউ থাকেন না এবং বাড়ির মালিক চাঁদপুরে ভাড়া বাসায় থাকেন।

তারিখ : ২০-১০-১




এই পাতার আরো খবর

















Bartaman Kantho © All rights reserved 2020 | Developed By
Theme Customized BY WooHostBD