মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৪:২৮ পূর্বাহ্ন

করোনাকালে গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফের দাবি

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৪৮ পাঠক
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৪:২৮ পূর্বাহ্ন

সিরাজুল ইসলাম রতন, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, গাইবান্ধা : করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে চরম বিপাকে পড়েছে গাইবান্ধায় বিভিন্ন মেসে থাকা দরিদ্র্র শিক্ষার্থীরা। মেস মালিকদের ভাড়া পরিশোধের তাগিদে দিশেহারা হয়ে পড়েছে তারা। এমতাবস্থায় সরকারের কাছে করোনা ভাইরাসের এই দুর্যোগকালীন সময়ে মেস ভাড়া মওকুফের দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২৯ এপ্রিল) গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগের সহযোগিতায় মেসে অবস্থানকারি শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত আবেদন জানানো হয়েছে। এছাড়া ওই আবেদনের অনুলিপি পুলিশ সুপার ও গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র বরাবরে দাখিল করা হয়।
পরে গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে জেলা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ ও মেসে অবস্থানকারি শিক্ষার্থীরা এই দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করে।মতবিনিময় কালে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আসিফ সরকার, পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক জুলফিকার রহমান রাসেল, গাইবান্ধা সরকারি কলেজের উপ-সমাজসেবা সম্পাদক কামাল হোসেনসহ অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ছাত্রনেতা মশিউর রহমান শাওন, রফিক হাসান, মাহতাব হাসান মানিক, মো. সুরুজ খান, মো. রায়হান সরকার, গোবিন্দ চন্দ্র বর্মন, আয়শা সিদ্দিকা রিতু প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক বরাবরে শিক্ষার্থীদের লিখিত আবেদনে উল্লেখ করা হয় প্রধাানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকতে পারে বলে ঘোষণা দিয়েছেন। এতে মেসে অবস্থানকারি শিক্ষার্থীরা ২০ মার্চ থেকে সরকারি নির্দেশ মোতাবেক নিজ নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছে। এমতাবস্থায় একটানা আগামী ৫ মাস শিক্ষার্থীদের নিজ বাড়ীতে অবস্থান করতে হবে।
এদিকে মেস মালিকরা তাদের মেসের মাসিক ভাড়া পরিশোধ করতে বার বার তাগিদ এবং চাপ সৃষ্টি করছে। যা শিক্ষার্থীদের পক্ষে পরিশোধ করা কোনক্রমেই সম্ভব হচ্ছে না। কেননা মেসে অবস্থানকারি শতকরা

প্রায় ৮০ ভাগ শিক্ষার্থী গ্রামের দরিদ্র এবং দিনমজুর পরিবারের সন্তান। এছাড়া মেসে অবস্থানকারি অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা প্রাইভেট, কোচিং, দোকানে খন্ডকালিন চাকরি করে লেখাপড়াসহ নিজের সকল ব্যয় নির্বাহ করে থাকে। কিন্তু সবকিছু বন্ধ থাকার কারণে এই সমস্ত শিক্ষার্থীরা দিশেহারা হয়ে পরেছে। এজন্য তারা জরুরী ভিত্তিতে মেস ভাড়া মওকুফ করার দাবি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *