বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরে এক ডাক্তারসহ ৬জন করোনায় আক্রান্ত : উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু দুই জনের

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৪০ পাঠক
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন

এ কে আজাদ, ব্যুরো প্রধান, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, চাঁদপুর : করোনাভাইরাসে চাঁদপুর জেলার ৪জন আক্রান্ত বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন রোগতত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) যে তথ্য শনিবার তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে অবশেষে তা নিশ্চিত করেছেন চাঁদপুরের সিভিল সার্জন। রোববার সকালে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি জানান, আরো ২জনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। অর্থাৎ আগের ২জনসহ মোট ৪জন করোনা আক্রান্ত হিসেবে সনাক্ত হয়েছেন।

এদিকে আজ ১২ এপ্রিল রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার ভিত্তিতে মোট ৬জনের পজেটিভ বলে রোগতত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। তবে চার জনের পর যে দু’জনের নমুনায় পজেটিভ ধরা পরে তাদের অবস্থান ওয়েবসাইটে দেয়া হয় না। আমরা স্থানিয় ভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি তাদের অবস্থান জানার জন্য।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ রোববার সকালে জানান, নতুন করে আক্রান্তদের একজন মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার ও অন্যজন চাঁদপুর সদর উপজেলার বহরিয়া এলাকার (৪০) সদর উপজেলায় এই আক্রান্ত রোগীও নারায়নঞ্জ থেকে এসেছেন।

এর আগে শনিবার আইইডিসিআর’র অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছিল যে, চাঁদপুরে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪জন। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়া আর কোনো তথ্য দেওয়া ছিল না আইইডিসিআর- এর ওয়েবসাইটে।

তাই সিভিল সার্জনও শনিবার ৪জন আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারেননি। সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হিসেবে সনাক্ত ৪জনের মধ্যে ৩জন’ই মতলব উত্তরের। এর মধ্যে ২জন  নারায়নগঞ্জ ফেরত ও ১জন ওইসব রোগীর সংস্পর্শে আসা চিকিৎসক। অন্যজন চাঁদপুর সদরের বাসিন্দা।

তিনিও নারায়নগঞ্জ ফেরত। অর্থাৎ নারায়নগঞ্জ থেকে আসা লোকের মাধ্যমেই চাঁদপুরে করোনার সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা ফয়সাল নামের ১জনের মৃত্যু হয়েছে জ্বর ঠান্ডা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে। এই ঘটনায় করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ওই মৃত ব্যাক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। শনিবার বিকেলে তার মৃত্যু হয় চাঁদপুর সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের কামরাংগা গ্রামে।

ফয়সাল নামের ৪১ বছর বায়সী ওই ব্যক্তি নারায়নগঞ্জের পাঠানতলী এলাকায় বসবাস করতো। তার পৈত্রিক নিবাস জেলার মতলব উত্তর উপজেলার কাসিমপুর পাদুয়া মুন্সি বাড়িতে। নারায়নগঞ্জের এসিআই ঔষধ কোম্পানিতে তিনি চাকুরি করতেন। গত ১ এপ্রিল স্ত্রী, ছেলে মেয়েকে নিয়ে তিনি শ্বশুর বাড়ি কামরাঙ্গা আসেন। দুপুরের দিকে তার শ্বাসকষ্ট শুরু হয়, বিকেলে তিনি মারা যান।

অপরদিকে চাঁদপুর সদরে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে শনিবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার আশিকাটি ইউনিয়নের হাপানিয়া গ্রামের মাংস ব্যবসায়ী সোলেমান গাজী ( ৪৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

ওইদিন সন্ধায় চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয় বলে জানান তার পরিবারের লোকজন। তারা জানান, সোলেমান গাজী কয়েক দিন যাবত জ্বর, ঠান্ডা, শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মৃত্যু বরন করেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চাঁদপুর মতলব উত্তর উপজেলায় ডাক্তারসহ তিন আক্রান্ত ব্যাক্তিকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে যানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *