বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম-
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত আরও ৩৮ ফিলিস্তিনি জেলেনস্কির হোমটাউনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৯ বিমান দুর্ঘটনায় ভাইস প্রেসিডেন্ট নিহত: মালাবিতে ২১ দিনের শোক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হত্যা: বিচারের দাবীতে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার অস্থিরতাকারীদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি নাগরিক সমস্যা সমাধানে সরকার ও নাগরিকের অংশীদারিত্ব প্রয়োজন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিনা কর্তনে সেন্সর ছাড়পত্র পেল ‘মুনাফিক’ আমাদের দিয়ে রান্না করাতো জলদস্যুরা, খেয়ে ফেলতো সবই যাতায়াতের দুর্ঘটনায় ক্ষতিপূরণ পাবে পোশাক শ্রমিকরা আলোচিত সংগীতশিল্পীসহ নিহত ২, পালিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি বাসচালকের

জাতীয়করণ দাবিতে অনশনে যাচ্ছেন মাদ্রাসা শিক্ষকরা

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৩৫ পাঠক
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,রোববার,০৭ জানুয়ারী, ২০১৮ : স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণ দাবি পূরণ না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি পালনের কথা ভাবছেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার আমরণ অনশনের ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মহাসচিব কাজী মখলেছুর রহমান।

রোববার সকালে মখলেছুর রহমান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আমরা আজ সপ্তম দিনের মতো এখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি। কঠোর কর্মসূচি দেয়া ছাড়া আমাদের সামনে আর কোনো রাস্তা খোলা নেই। আগামীকাল হয়তো আমরা আমরণ অনশনের ঘোষণা দেব।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাস ছাড়া আমরা এই কর্মসূচি বন্ধ করবো না। সরকার আমাদের জাতীয়করণের দাবি মেনে না নিলে মরণ ছাড়া আমাদের কোনো পথ খোলা নেই।

অবস্থান কর্মসূচি থেকে আয়োজক সংগঠনের দপ্তর সম্পাদক মো. ইনতাজ বিন হাকিম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করতে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। অথচ তারই কন্যার পরিচালিত দেশে আমরা ৩২ বছর ধরে বিনা বেতনে চাকরি করে যাচ্ছি। বেতন-ভাতা না পেয়ে ইবতেদায়ি শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করে এক ইতিহাস তৈরি করেছেন। আশা করি তিনি তেমনিভাবে আমাদের ন্যায্য দাবি মেনে নিয়ে আরো একটি ইতিহাস সৃষ্টি করবেন।

আন্দোলনরত শিক্ষকরা জানান, একই পরিপত্রে ১৯৯৪ সালে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণ করা হয় ৫০০ টাকা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি ৫ম শ্রেণির কার্যক্রম একই হলেও ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে সরকার।

এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি মাসে ২২ থেকে ৩০ হাজার টাকা বেতন হলেও ১ হাজার ৫১৯টি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা সরকারের থেকে কোনো বেতন পান না।

মাদ্রাসা শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচিস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, প্রেসক্লাবের মূল গেটের পশ্চিম পাশের ফুটপাথে অবস্থান নিয়েছেন শতাধিক আন্দোলনকারী।

‘বেতন দাও নইলে ভাত দে, মোগো বেতন নইলে বিষ, বেতন বঞ্চিত ৩২ বছর, হামরা খুব কষ্টে আছি, চাকরি আছে বেতন নাই, এমন কোনো দেশ নাই’ এ ধরনের নানা স্লোগানের প্ল্যাকার্ড হাতে দাবি পূরণের পক্ষে অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন সারাদেশ থেকে আসা মাদ্রাসা শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

প্রসঙ্গত, জাতীয়করণের দাবিতে গত ১ জানুয়ারি (সোমবার) থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *