সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন

জাবির ছাত্র জুবায়ের হত্যায় ৫ জনের ফাঁসি বহাল, ৪ জন খালাস

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৩২ পাঠক
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৮: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জুবায়ের আহমেদ ২০১২ সালে ৮ জানুয়ারি ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের কোন্দলের সময় প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হন। জুবায়ের ইংরেজি বিভাগের স্নাতক শেষ বর্ষের ছাত্র ছিল। জুবায়ের হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি বহাল রেখে রায় দিয়েছে হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের বিচারপতি ভবানী প্রসাদ সিংহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে বুধবার এ রায় বহাল রাখেন।এছাড়া এ মামলায় যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া ছয় আসামির মধ্যে চারজনকে খালাস দিয়েছে আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জাহিদ সরোয়ার কাজল ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল নির্মল কুমার দাস এবং আসামিপক্ষে আইনজীবী রানা কাউসার এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

হত্যার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন নিবন্ধক হামিদুর রহমান আশুলিয়া থানায় যে মামলা করেন, তাতে ২০১২ সালের ৮ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ১৩ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ পারভেজ।

হত্যাকাণ্ডের দেড়বছর পর মামলাটি অভিযোগ গঠনের পর্যায়ে এলে তা হাকিম আদালত থেকে পাঠানো হয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে।

ঢাকার ৪ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবিএম নিজামুল হক ২০১৫ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি এ মামলার রায়ে পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড এবং ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় দুজন খালাস পান সে সময়।

আসামিরা সবাই ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী। ওই রায়ে ফাঁসির দণ্ড পাওয়া আসামিরা হলেন- প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগের আশিকুল ইসলাম আশিক, খান মোহাম্মদ রইছ ও জাহিদ হাসান, দর্শন বিভাগের রাশেদুল ইসলাম রাজু এবং সরকার ও রাজনীতি বিভাগের মাহবুব আকরাম। এদের মধ্যে রাশেদুল ইসলাম রাজু ছাড়া বাকি চারজন পলাতক।

বিচারিক আদালতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া আসামিরা হলেন- পরিসংখ্যান বিভাগের ছাত্র শফিউল আলম সেতু, অভিনন্দন কুণ্ডু অভি, দর্শন বিভাগের কামরুজ্জামান সোহাগ ও ইশতিয়াক মেহবুব অরূপ, ইতিহাস বিভাগের মাজহারুল ইসলাম এবং অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র নাজমুস সাকিব তপু। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে অরূপ পলাতক, বাকিরা কারাগারে আছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *